আজ রবিবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ দুপুর ২:৫৩

add

মালয়েশিয়ায় ভাগ্যের পরিহাসে রেমিটেন্স যোদ্ধা

প্রবাসীর কথা ডেস্ক
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৯, ২০১৮

আমিনুল ইসলাম রতন, করেসপনডেন্ট কুয়ালা লামপুর, মালয়েশিয়া : আশে পাশে বা পথ চলতে প্রবাসীদের চিত্র দেখে বুঝতে পারি ওদের থেকে আমি অনেক ভাল আছি। তবে আমারও একদিন ওদের মত করুন অবস্থা ছিল সেই দুর্গম পথ অতিক্রম করে আজ একটু ভাল আছি। হিংসে হতো না, ভিন্ন পথের পথিকদের দেখে করুণা হত, ইচ্ছে হতো তাদের মত নামি দামী ব্যান্ডের জামা কাপড় পরি কিন্তু সামর্থ্য ছিল না, কারণ আমার টাকা পাবলিকের পকেটে থাকতো না, সীমিত আয়ের বেষ্টনে বেষ্টিত হয়ে থাকতে হতো আমাকে, অন্যদের মত আদম ব্যবসা আমার পক্ষে সম্ভব হয় নাই তাই আমি সংখ্যা গরিষ্ঠ দের তালিকায়। আল্প চাহিদার মানুষরা নাকি সুখী হয় তাই হয়ত আমি সুখী, স্বাধীন। কথাটা সাময়িক ভাবে সত্য হলেও প্রবাসীদের করুণ দশায় অনেক সময় মনকে দুঃখ ভারাক্রান্ত করে তোলে।

মাঝে মধ্যেই কাজের তাগিদে মালয়েশিয়ার এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে ঘোরা ফেরা করতে হয়, রেস্ট এরিয়াতে পরিচ্ছন্ন কাজে ব্যস্ত থাকতে দেখি অনেক বাংলাদেশী শ্রমিক। আমাকে প্রথমে কেহ দেখলে বাঙালি মনে করতে পারবে না, তাই শৌচাগারের প্রবেশ পথে ৪৫ উর্ধ্ব এক বাংলাদেশী মালায় ভাষাতে আমার কাছে ১ রিঙ্গিট ভিক্ষা চাইল, একটু রাগ হলো লোকটির প্রতি, কোন কথা না বলে শৌচাগারে ঢুকলাম। শৌচাগারের কাজ শেষ করতে করতে মনের মাঝে অনেক কিছুর উদয় হলো, পরিশেষে তার করুণ মুখটা আমাকে বিচলিত করলো। ও তো দোষী না, কর্তৃপক্ষ দোষী। জিজ্ঞাসা করলাম অনেক কিছু, ছবি চাইলাম দিল না, করুণ কন্ঠে বলল ছেলে, মেয়ে, পরিবার পরিজনরা দেখলে মনে কস্ট পাবে। নয়শত পঞ্চাশ রিঙ্গিত বেতন পাই ভাগ্য ভাল থাকার জায়গার ভাড়া কোম্পানি পরিশোধ করে, ভিক্ষা না করে কি করব, ধার দেনা তো আছেই, তার পর পরিবারের খরচা। দশ রিঙ্গিট দিতে গেলাম বলল আমি আপনার কাছ থেকে নিতে পারব না, পারলে আমাদের দুর্দশার কথা কাগজে লিখে দেশের সরকারকে জানিয়ে দেন তাতেই আমি খুশি হবো, কর্তৃপক্ষ যেন আমাদের প্রতি একটু দৃষ্টি দেয়।

সবাই যদি সরকার নির্ধারিত খরচে প্রবাসে আসতে পারতো সুদের টাকা পরিশোধ করতে ভিক্ষা করার প্রয়োজন পড়তো না, অক্ষুন্ন থাকতো দেশ ও জাতির মান। এমন অনেক প্রবাসীদেরকে দেখেছি কাজের শেষে বিভিন্ন ধরনের পার্টটাইম করতে অতিরিক্ত কিছু ডলার উপার্জন করতে, তন্মধ্যে ভিক্ষা প্রবৃত্তি ও কাগজ এবং মেটাল সংগ্রহ করে অতিরিক্ত কিছু উপার্জন অন্যতম, তাই বিবেকের তাড়নায় তাদের করুণ কাহিনী লিখতে বাধ্য হলাম। পরিচিত মুখ খোঁজ নিয়ে জানতে পারলাম একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে কাজ করে, নতুন কয়েক মাস হয়েছে এসেছে, আসার এক মাস পরেই সে বুঝতে পেরেছে চার লাখ টাকা খরচ করে প্রবাসে কাজ করতে আশার ফলাফল।

হঠাৎ একদিন দেখতে পেলাম আমার অফিসের নিচে ময়লার বিনের পাশে পড়ে থাকা কার্টুন সংগ্রহ করছে আমার পরিচিত মুখ। একদিন বিশ রিঙ্গিত নিয়ে ডাক্তার দেখাতে এসেছিল আমার মালিকের ক্লিনিকে, সে জানেনা এখানে কমপক্ষে আশি রিঙ্গিতের নিচে বেসরকারি ক্লিনিকে রোগ চিকিৎসা হয় না, পরিশেষে আমি তার বাকি ষাট রিঙ্গিতের জামিন নিই এবং তাকে পরামর্শ দিয়েছিলাম ছাতু মালয়েশিয়া (সরকারি ক্লিনিক) ক্লিনিকে যেতে সেখানে ১৫/২০ রিঙ্গিতের বিনিময়ে সাধারণ রোগের চিকিৎসা করা হয়। আরও বলেছিলাম কার্টুন ও মেটাল সংগ্রহ করতে যে সময় ও শ্রম ব্যয় হয় বিক্র্য় করে তার অর্ধেক মূল্যও পাওয়া যায় না, যদি পারো পার্টটাইম খুঁজে নিও যদিও মেলা ভার।

চার লাখ টাকা ধার দেনা করে কয়েক হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়ে ভাগ্য পরিবর্তন করতে এসে ওরা ভাগ্য বিড়ম্বনার স্বীকার, তার জন্য কে দায়ী? তারা নিজেরা না কর্তৃপক্ষ? সিন্ডিকেট করে বাজার দর বাড়াতে পারে কিন্তু কমানোর জন্য কেহ চেষ্টাও করে না, সবাই দু পয়সা বেশী নেয় কেহ কম নিতে নারাজ। কখনো কি কর্তৃপক্ষের হৃদয়ে একটু করুণা হয়নি? কখনো কি ভাগ্য বিড়ম্বিত প্রবাসী শ্রমিকদের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে সুস্ঠ পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হবে না? আর কত দিন গরিবের মিষ্টি ঘাম রক্ত ভক্ষণ করবে লোভী, সভ্য ও উঁচু তলার মানুষরা? ওদের জন্য জবাব চাওয়ার কেহ নেই, চাইলেও প্রতিশ্রুতির ফুল ঝরিয়ে লুটে খাবার পথ প্রশস্ত করবে, দিনের পর দিন আরও বাড়বে ভাগ্য বিড়ম্বিত প্রবাসীর কাহিনী। কখনো কি হবে এই কাহিনীর অন্ত? যেদিন হবে অন্ত, সেদিন বুঝব ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ!

Print Friendly, PDF & Email
বাংলাদেশে যাত্রা করলো সংবাদ সংস্থা ‘A24’
আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন
সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী মালয়েশিয়া প্রবাসী ছাত্র নেতা মোঃ রবিউল ইসলামের মনোনয়ন পত্র দাখিল
মালয়েশিয়া প্রবাসীদের দুঃখ গাথা জীবন
ঢাবি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রলীগের অবস্থান
বি এস ইউ এম-এর বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা ও বৈশাখী উৎসব
মালয়েশিয়ায় হঠাৎ পুলিশের ফাঁদ : ৩২০ প্রবাসী আটক
আউট সোর্সিংয়ের নামে ডিজিটাল প্রতারণা, ২০০ কোটির মালিক পলাশ
মালয়েশিয়া প্রফেসর ড. বদরুল হুদা খানকে সংবর্ধনা
সুখ পেতে বহুতল বাড়ি লাগে না
মালয়েশিয়ার কেএলসিসিতে ঘুরতে এসে ৯২ বাংলাদেশী গ্রেফতার!
মালয়েশিয়াতে শরীয়তপুর প্রবাসীদের নৌকায় ভোট চেয়ে প্রচারনা
বাংলাদেশ কমিউনিটি প্রেসক্লাব মালয়েশিয়ার পূর্ণাঙ্গ কমিটি
মালয়েশিয়ার নতুন সুলতান কে এই টেঙ্কু আবদুল্লাহ
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন মালয়েশিয়া শাখার উদ্যেগে নির্বাচন প্রস্ততি সভা অনুষ্ঠিত
বাংলাদেশি শ্রমিক নির্যাতন : ডব্লিউআরপির বিরুদ্ধে মামলা করবে মালয় সরকার
বিয়ে-বিচ্ছেদের খবরে ক্ষুব্ধ নুসরাত জাহান
মালয়েশিয়ায় আরাফাত রহমান কোকোর ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
শেখ হাসিনাকে ৫ দেশের রাষ্ট্র-সরকার প্রধানের অভিনন্দন
ছোট শিশুদের গরুর দুধ খাওয়ানো কি ঠিক?

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
প্রয়োজনীয় নাম্বার