আজ সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ রাত ৩:২১

add

রমরমা কামারপট্টি, ঈদ ঘিরে বেড়েছে দাম

প্রবাসীর কথা ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১০, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক : ঈদে যে পণ্যের চাহিদা বেশি, সে পণ্যের দামও তত বেশি। গত কয়েক বছর ধরে যা ট্রেডিশনে রূপ নিয়েছে। ঈদুল ফিতরে কাপড়, লাচ্ছা, সেমাইসহ পণ্যের। আর ঈদুল আযহা এলে সবার আগে বাড়ে মশলার দাম, আর ঈদের দু’একদিন আগে বাড়ে লোহার তৈরির চাপাতি-চাকুর দাম। নিয়ন্ত্রণ শুধু নিয়ন্ত্রক সংস্থার মুখে। বাস্তবে চিত্রটা ভিন্ন। কোরবানির ঈদ ঘিরে এরই মধ্যে রমরমা বাণিজ্য কামারপট্টিতে। বেড়ে গেছে চাকু-চাপাতির দাম। যদিও ঈদ পরবর্তী সময়ে মূল দামে ফিরবে।

রাজধানীর কামারপট্টি ঘুরে দেখা গেছে, গত বছরের তুলনায় এবছর কোরবানির ঈদে চাপাতি ও ছুরির দাম বেড়েছে। এ নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা গেছে। তারা বলছেন, প্রতিবছর এই সময়টা এলেই নানা অজুহাতে দাম বাড়িয়ে দেওয়া হয়। তবে বিক্রেতাদের ভাষ্য, কাঁচামালের দাম বাড়ায় এসব পণ্যের দাম বেড়েছে।

শনিবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর কারওয়ান বাজারের কামারপট্টিতে গিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে। ক্রেতারা জানিয়েছেন, গতবছর কোরবানির ঈদের তুলনায় এবছর প্রতিকেজি লোহায় কামারেরা ২০০ টাকা বেশি নিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, পুরনো ছুরি চাকু ধার দিতেও অস্বাভাবিক দাম চাইছেন তারা।

কল্যাণপুর থেকে ছুরি চাকু নিতে আসা আসাদ জুবায়ের জানান, প্রতিবছর এখান থেকে ছুরি চাকু কিনি এবং পুরানগুলো ধার দিয়ে নিয়ে যাই। এখানকার ব্যবসায়ীরা এই সময়টার সুযোগে থাকেন। অন্যান্য সময়ের তুলনায় এই সময়ে অস্বাভাবিক দাম হাঁকেন তারা। কোরবানির ঈদ আসলেই তারা মানুষকে ঠেকিয়ে ব্যবসা করেন। তবে দাম বাড়ার কথা স্বীকার করেন ভোলা স্টোরের কর্মচারি সুমন। তিনি বলেন, আগের তুলনায় প্রতিকেজি লোহায় ১০০ টাকা করে দাম বেড়েছে। অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে কয়লার দাম। আগে যে কয়লা ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা বস্তায় কেনা হতো সেটি এখন ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকা আনতে হয়। তারপরও কয়লার মান ভালো না। এছাড়া সারাবছর লস দিয়ে ব্যবসা করতে হয়। এই সময়টায় একটু বেচা-কেনা হয় বলে ব্যবসা করে টিকে আছি আমরা। মানুষ সারা বছর এগুলো কেনেন না তাই তাদের কাছে সামান্য দাম বাড়াটাকে অস্বাভাবিক মনে হচ্ছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কাঁচা লোহা দিয়ে তৈরি চাপাতি ৩০০ টাকা এবং পাকা লোহা দিয়ে তৈরি চাপাতি ৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ছোট ছুরি ৫০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে, গরু জবাইয়ের ছুরি ৩০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১২০০টাকা পিস এবং খাসি জবাইয়ের ছুরি ২৫০ থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা গত বছর প্রতি পিস ও কেজিতে ১০০ থেকে ২০০ টাকা কমে কেনা গেছে। তাই দাম বাড়াকে অস্বাভাবিক বলছেন ক্রেতারা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কারওয়ানবাজার কামারপট্টি ব্যবসায়ী বহুমুখী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, কয়লার দাম বাড়া ও কর্মচারী বেতন বোনাসের বিষয় রয়েছে। তাই জিনিসপত্রের দাম তো বাড়ছে। তবে তা বেশি নয়। দাম একটু বেশি হলেও আমাদের তৈরি জিনিসগুলো মান অত্যন্ত ভালো। এগুলো একবার কিনলে আট থেকে দশ বছর ব্যবহার করা যায়। কিন্তু কম দামে চায়না জিনিস কিনে ওয়ান টাইম ব্যবহার হবে এবং এটির মান তেমন ভালো নয় তাই ভালো জিনিস পেতে হলে একটু দাম বেশিই পড়ে জানান এই ব্যবসায়ী নেতা।

Print Friendly, PDF & Email
বাংলাদেশে যাত্রা করলো সংবাদ সংস্থা ‘A24’
আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন
সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী মালয়েশিয়া প্রবাসী ছাত্র নেতা মোঃ রবিউল ইসলামের মনোনয়ন পত্র দাখিল
মালয়েশিয়া প্রবাসীদের দুঃখ গাথা জীবন
ঢাবি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রলীগের অবস্থান
বি এস ইউ এম-এর বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা ও বৈশাখী উৎসব
মালয়েশিয়ায় হঠাৎ পুলিশের ফাঁদ : ৩২০ প্রবাসী আটক
আউট সোর্সিংয়ের নামে ডিজিটাল প্রতারণা, ২০০ কোটির মালিক পলাশ
মালয়েশিয়া প্রফেসর ড. বদরুল হুদা খানকে সংবর্ধনা
সুখ পেতে বহুতল বাড়ি লাগে না
মালয়েশিয়ার কেএলসিসিতে ঘুরতে এসে ৯২ বাংলাদেশী গ্রেফতার!
মালয়েশিয়াতে শরীয়তপুর প্রবাসীদের নৌকায় ভোট চেয়ে প্রচারনা
বাংলাদেশ কমিউনিটি প্রেসক্লাব মালয়েশিয়ার পূর্ণাঙ্গ কমিটি
মালয়েশিয়ার নতুন সুলতান কে এই টেঙ্কু আবদুল্লাহ
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন মালয়েশিয়া শাখার উদ্যেগে নির্বাচন প্রস্ততি সভা অনুষ্ঠিত
বাংলাদেশি শ্রমিক নির্যাতন : ডব্লিউআরপির বিরুদ্ধে মামলা করবে মালয় সরকার
বিয়ে-বিচ্ছেদের খবরে ক্ষুব্ধ নুসরাত জাহান
মালয়েশিয়ায় আরাফাত রহমান কোকোর ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
শেখ হাসিনাকে ৫ দেশের রাষ্ট্র-সরকার প্রধানের অভিনন্দন
ছোট শিশুদের গরুর দুধ খাওয়ানো কি ঠিক?

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
প্রয়োজনীয় নাম্বার