Dhaka , Monday, 30 January 2023

হ্যাকারদের ব্যাংকের অর্থ চুরির চেষ্টা ঠেকানো গেছে : সার্ট

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : 07:26:24 am, Wednesday, 9 September 2020
  • 640 বার

বাংলাদেশে সাইবার হামলার যে চেষ্টা করেছিল, তা ঠেকানো গেছে বলে জানিয়েছে সরকারের কম্পিউটার ইনসিডেন্ড রেসপন্স টিম (সার্ট) প্রকল্পের পরিচালক তারেক এম বরকতউল্লাহ।

তিনি বলেন, এখন আর ভয়ের কিছু নেই, বিপদ কেটে গেছে। সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার ‘বিগল বয়েজ’ নামের একটি হ্যাকার গ্রুপ জালিয়াতি করে অর্থ স্থানান্তর এবং এটিএম থেকে নগদ অর্থ সরানোর চেষ্টা করে বলে যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক করেছিল।জানা গেছে, দেশের তিনটি ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের নেটওয়ার্কে হ্যাকার গ্রুপটির ম্যালওয়ারের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছিল। হামলাকারীদের লক্ষ্য ছিল মূলত ব্যাংক। ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর নেটওয়ার্কের মাধ্যমে হ্যাকাররা ব্যাংকের অনলাইনে হানা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। এ কারণে আতঙ্কে ছিলেন ব্যাংকাররার। তখন এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) জানানো হয়েছিল।

তবে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো এখনও সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। অনেক ব্যাংক এটিএম ও অনলাইন ব্যাংকিং কার্যক্রম রাতে বন্ধ রেখেছে। বেশির ভাগ ব্যাংক কার্ডে ও অনলাইনে বিদেশে লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে। গ্রাহকদের কাছে সেই বার্তাও পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকগুলো সতর্কতার সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। সবকিছু এখন পর্যন্ত ঠিক আছে। কেউ বিপদে পড়েনি।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

হ্যাকারদের ব্যাংকের অর্থ চুরির চেষ্টা ঠেকানো গেছে : সার্ট

আপডেট টাইম : 07:26:24 am, Wednesday, 9 September 2020

বাংলাদেশে সাইবার হামলার যে চেষ্টা করেছিল, তা ঠেকানো গেছে বলে জানিয়েছে সরকারের কম্পিউটার ইনসিডেন্ড রেসপন্স টিম (সার্ট) প্রকল্পের পরিচালক তারেক এম বরকতউল্লাহ।

তিনি বলেন, এখন আর ভয়ের কিছু নেই, বিপদ কেটে গেছে। সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার ‘বিগল বয়েজ’ নামের একটি হ্যাকার গ্রুপ জালিয়াতি করে অর্থ স্থানান্তর এবং এটিএম থেকে নগদ অর্থ সরানোর চেষ্টা করে বলে যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক করেছিল।জানা গেছে, দেশের তিনটি ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের নেটওয়ার্কে হ্যাকার গ্রুপটির ম্যালওয়ারের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছিল। হামলাকারীদের লক্ষ্য ছিল মূলত ব্যাংক। ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর নেটওয়ার্কের মাধ্যমে হ্যাকাররা ব্যাংকের অনলাইনে হানা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। এ কারণে আতঙ্কে ছিলেন ব্যাংকাররার। তখন এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) জানানো হয়েছিল।

তবে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো এখনও সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। অনেক ব্যাংক এটিএম ও অনলাইন ব্যাংকিং কার্যক্রম রাতে বন্ধ রেখেছে। বেশির ভাগ ব্যাংক কার্ডে ও অনলাইনে বিদেশে লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে। গ্রাহকদের কাছে সেই বার্তাও পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকগুলো সতর্কতার সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। সবকিছু এখন পর্যন্ত ঠিক আছে। কেউ বিপদে পড়েনি।