Dhaka , Monday, 5 June 2023

ভর্তুকি দামে বিক্রির জন্য ২ কোটি লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:20:15 am, Wednesday, 28 December 2022
  • 21 বার

অর্থনীতি ডেস্ক: সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ১ কোটি ফ্যামিলি কার্ডধারী নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে ভর্তুকি দামে বিক্রির জন্য ২ কোটি ৯ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এতে মোট ব্যয় হবে ৩৩৪ কোটি ৩৯ লাখ ২৩ হাজার টাকা।

সূত্র জানায়, প্রতিমাসে ফ্যামিলি কার্ডধারী ১ কোটি পরিবারের মাঝে ভর্তুকি দামে টিসিবির পণ্য বিক্রির সরকারি নির্দেশনা আছে। সে নির্দেশনার আলোকে অনুমোদিত পরিকল্পনার বিপরীতে সাধারণত উন্মুক্ত দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে পণ্য সংগ্রহ হয়ে থাকে। উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে সংগ্রহের ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়ের আগে পণ্য সরবরাহ পাওয়া যায় না। বিদেশ থেকে সয়াবিন তেল আমদানির জন্য প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন আছে। সয়াবিন তেল আমদানির জন্য কয়েকটি আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্র আহ্বান করা হলেও দরপত্র জমা পড়েনি। এছাড়া, স্থানীয় বাজারে সয়াবিন তেলের স্বল্পতা ও অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় টিসিবির ফ্যামিলি কার্ডধারী ১ কোটি পরিবারের কাছে প্রতি মাসে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য সরবরাহ চেইন অক্ষুণ্ন রাখার স্বার্থে আন্তর্জাতিকভাবে জরুরি ভিত্তিতে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি (ডিপিএম) সয়াবিন তেল কেনার কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়।

সূত্র জানায়, এবার পৃথক তিনটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে মোট ২ কোটি ৯ লাখ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল সংগ্রহের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সয়াবিন তেল সরবরাহকারী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ওমানভিত্তিক জাদ আল রাহিল ইন্টারন্যাশনাল এলএলসির (স্থানীয় এজেন্ট: স্কাই ট্রেডিং) কাছে গত ৮ ডিসেম্বর দরপত্র চাওয়া হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আশা করছে, প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে মানসম্মত যাচিত পরিমাণ সয়াবিন তেল সরবরাহ পাওয়া যাবে।

দরপত্রে সাড়া দিয়ে গত ১১ ডিসেম্বর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব পাঠায় প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিষ্ঠানটি ব্রাজিল অথবা পোল্যান্ড থেকে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল সরবরাহ করবে। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি নির্ধারিত (নেগোশিয়েটেড) প্রতি লিটার তেলের দাম ১.৩১ মার্কিন ডলার, দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দাম প্রতি লিটার ১.৫৯ মার্কিন ডলার। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশনের মাধ্যমে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.৩১ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করে। সে হিসেবে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে প্রয়োজন হবে ১৫১ কোটি ৭৩ লাখ ৭৩ হাজার টাকা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় টিসিবির জন্য অপর একটি সরাসরি দরপ্রস্তাবের মাধ্যমে ৫৫ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ নিয়েছে। সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী দেশীয় প্রতিষ্ঠান সুন সিং এডিবল অয়েল লিমিটেড ১ লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন সরবরাহ করবে। ১ লিটারের পেট বোতলে প্রতি লিটারের দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ছিল প্রতি লিটার ১৮৮.৫০ টাকা। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশন করে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের ক্রয় মূল্য নির্ধারণ করে ১৮৪.৫০ টাকা। সে হিসেবে ৫৫ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে ব্যয় হবে ১০১ কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

এছাড়া, সরাসরি দরপ্রস্তাবের মাধ্যমে আরও ৪৪ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনা হচ্ছে। সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী দেশীয় প্রতিষ্ঠান সেনা এডিবল অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ ২ লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন সরবরাহ করবে। দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ছিল প্রতি লিটার ১৮৮.৫০ টাকা। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশন করে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের ক্রয় মূল্য নির্ধারণ করে ১৮৪.৫০ টাকা। সে হিসেবে ৪৪ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে ব্যয় হবে ৮১ কোটি ১৮ লাখ টাকা।

দেশীয় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ২০২৩ সালের ৩১ জানুয়ারি এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠানটিকে ২ ফেব্রুয়ারি মধ্যে সয়াবিন তেল সরবরাহ করার শর্ত দেওয়া হয়েছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

ভর্তুকি দামে বিক্রির জন্য ২ কোটি লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ

আপডেট টাইম : 08:20:15 am, Wednesday, 28 December 2022

অর্থনীতি ডেস্ক: সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ১ কোটি ফ্যামিলি কার্ডধারী নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে ভর্তুকি দামে বিক্রির জন্য ২ কোটি ৯ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এতে মোট ব্যয় হবে ৩৩৪ কোটি ৩৯ লাখ ২৩ হাজার টাকা।

সূত্র জানায়, প্রতিমাসে ফ্যামিলি কার্ডধারী ১ কোটি পরিবারের মাঝে ভর্তুকি দামে টিসিবির পণ্য বিক্রির সরকারি নির্দেশনা আছে। সে নির্দেশনার আলোকে অনুমোদিত পরিকল্পনার বিপরীতে সাধারণত উন্মুক্ত দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে পণ্য সংগ্রহ হয়ে থাকে। উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে সংগ্রহের ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়ের আগে পণ্য সরবরাহ পাওয়া যায় না। বিদেশ থেকে সয়াবিন তেল আমদানির জন্য প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন আছে। সয়াবিন তেল আমদানির জন্য কয়েকটি আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্র আহ্বান করা হলেও দরপত্র জমা পড়েনি। এছাড়া, স্থানীয় বাজারে সয়াবিন তেলের স্বল্পতা ও অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় টিসিবির ফ্যামিলি কার্ডধারী ১ কোটি পরিবারের কাছে প্রতি মাসে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য সরবরাহ চেইন অক্ষুণ্ন রাখার স্বার্থে আন্তর্জাতিকভাবে জরুরি ভিত্তিতে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি (ডিপিএম) সয়াবিন তেল কেনার কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়।

সূত্র জানায়, এবার পৃথক তিনটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে মোট ২ কোটি ৯ লাখ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল সংগ্রহের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সয়াবিন তেল সরবরাহকারী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ওমানভিত্তিক জাদ আল রাহিল ইন্টারন্যাশনাল এলএলসির (স্থানীয় এজেন্ট: স্কাই ট্রেডিং) কাছে গত ৮ ডিসেম্বর দরপত্র চাওয়া হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আশা করছে, প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে মানসম্মত যাচিত পরিমাণ সয়াবিন তেল সরবরাহ পাওয়া যাবে।

দরপত্রে সাড়া দিয়ে গত ১১ ডিসেম্বর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব পাঠায় প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিষ্ঠানটি ব্রাজিল অথবা পোল্যান্ড থেকে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল সরবরাহ করবে। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি নির্ধারিত (নেগোশিয়েটেড) প্রতি লিটার তেলের দাম ১.৩১ মার্কিন ডলার, দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দাম প্রতি লিটার ১.৫৯ মার্কিন ডলার। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশনের মাধ্যমে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.৩১ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করে। সে হিসেবে ১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে প্রয়োজন হবে ১৫১ কোটি ৭৩ লাখ ৭৩ হাজার টাকা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় টিসিবির জন্য অপর একটি সরাসরি দরপ্রস্তাবের মাধ্যমে ৫৫ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার উদ্যোগ নিয়েছে। সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী দেশীয় প্রতিষ্ঠান সুন সিং এডিবল অয়েল লিমিটেড ১ লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন সরবরাহ করবে। ১ লিটারের পেট বোতলে প্রতি লিটারের দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ছিল প্রতি লিটার ১৮৮.৫০ টাকা। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশন করে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের ক্রয় মূল্য নির্ধারণ করে ১৮৪.৫০ টাকা। সে হিসেবে ৫৫ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে ব্যয় হবে ১০১ কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

এছাড়া, সরাসরি দরপ্রস্তাবের মাধ্যমে আরও ৪৪ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনা হচ্ছে। সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী দেশীয় প্রতিষ্ঠান সেনা এডিবল অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ ২ লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন সরবরাহ করবে। দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ছিল প্রতি লিটার ১৮৮.৫০ টাকা। মূল্যায়ন কমিটি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নেগোশিয়েশন করে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের ক্রয় মূল্য নির্ধারণ করে ১৮৪.৫০ টাকা। সে হিসেবে ৪৪ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে ব্যয় হবে ৮১ কোটি ১৮ লাখ টাকা।

দেশীয় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ২০২৩ সালের ৩১ জানুয়ারি এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠানটিকে ২ ফেব্রুয়ারি মধ্যে সয়াবিন তেল সরবরাহ করার শর্ত দেওয়া হয়েছে।