Dhaka , Wednesday, 8 February 2023

বাণিজ্যমেলায় কীভাবে যাবেন, বিআরটিসি বাস ভাড়া কত?

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:33:58 am, Saturday, 7 January 2023
  • 17 বার

ভ্রমণ ডেস্ক: পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হয়েছে বাণিজ্যমেলা ২০২৩। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম দিনেই ২৭তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন করেন।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো পূর্বাচলে আয়োজন করা হয়েছে মাসব্যাপী এ মেলা। ঢাকার মূল শহরের বাইরে হওয়ায় গতবারের মতো এবারও যাতায়াতের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘এবারও যাতায়াতে যেন ভোগান্তি না হয় এজন্য কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে সাধারণ দিনে ৫০-৬০টি ও ছুটির দিনে দেড় শতাধিক বিআরটিসি বাস থাকবে। যতক্ষণ যাত্রী থাকবে ততক্ষণ বাস থাকবে।’

এবার বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। যারা নিজস্ব গাড়ি নিয়ে যেতে চান, তাদের জন্য মেলায় প্রায় ১ হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখা আছে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। সাপ্তাহিক বন্ধের দিনগুলোতে রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

এবারে মেলার প্রবেশমূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা ও শিশুদের জন্য ২০ টাকা। মেলার টিকিট চাইলে অনলাইনেও কিনতে পারবেন। এক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ছাড় পাবেন।

এবারের মেলায় দেশি-বিদেশি মিলে মেলায় মোট ৩৫১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন থাকছে। গতবার এই সংখ্যা ছিল ২২৫টি।

মেলায় ১০টি দেশের ১৭ প্রতিষ্ঠানের অংশ নেওয়ার কথা- মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ভারত, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও ইরান।

দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন, উৎপাদনে সহায়তার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো স্থায়ী ভেন্যু বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টারে বাণিজ্যমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বর্তমানে এটি বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টার নামে পরিচিত। এই এক্সিবিশন সেন্টারটি নির্মাণে মোট ব্যয় হয় ৭৭৩ কোটি টাকা।

কীভাবে যাবেন বাণিজ্যমেলায়?

কুড়িল বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের দুরত্ব প্রায় ১৬ কিলোমিটার। রাস্তা ফাঁকা থাকলে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলায় পৌঁছাতে সময় লাগতে পারে ৫০ মিনিট।

আর যানজট থাকলে দেড় ঘণ্টাও লাগতে পারে বাণিজ্য মেলায় পৌঁছাতে। তাই হাতে সময় নিয়ে বের হওয়া ভালো। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে গেলে পার্কিংয়ের ঝামেলায় পড়তে হবে না। কারণ যথেষ্ট জায়গা আছে পার্কিংয়ের জন্য।

বিআরটিসি বাস ছাড়াও অন্যান্য যাত্রীবাহী বাসে বাণিজ্যমেলায় পৌঁছাতে জনপ্রতি গুনতে হবে ৪০ টাকা। নামতে হবে কাঞ্চনব্রিজে। সেখান থেকে ১০-২০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে পারবেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

বাণিজ্যমেলায় কীভাবে যাবেন, বিআরটিসি বাস ভাড়া কত?

আপডেট টাইম : 08:33:58 am, Saturday, 7 January 2023

ভ্রমণ ডেস্ক: পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হয়েছে বাণিজ্যমেলা ২০২৩। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম দিনেই ২৭তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন করেন।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো পূর্বাচলে আয়োজন করা হয়েছে মাসব্যাপী এ মেলা। ঢাকার মূল শহরের বাইরে হওয়ায় গতবারের মতো এবারও যাতায়াতের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘এবারও যাতায়াতে যেন ভোগান্তি না হয় এজন্য কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে সাধারণ দিনে ৫০-৬০টি ও ছুটির দিনে দেড় শতাধিক বিআরটিসি বাস থাকবে। যতক্ষণ যাত্রী থাকবে ততক্ষণ বাস থাকবে।’

এবার বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। যারা নিজস্ব গাড়ি নিয়ে যেতে চান, তাদের জন্য মেলায় প্রায় ১ হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখা আছে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। সাপ্তাহিক বন্ধের দিনগুলোতে রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

এবারে মেলার প্রবেশমূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা ও শিশুদের জন্য ২০ টাকা। মেলার টিকিট চাইলে অনলাইনেও কিনতে পারবেন। এক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ছাড় পাবেন।

এবারের মেলায় দেশি-বিদেশি মিলে মেলায় মোট ৩৫১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন থাকছে। গতবার এই সংখ্যা ছিল ২২৫টি।

মেলায় ১০টি দেশের ১৭ প্রতিষ্ঠানের অংশ নেওয়ার কথা- মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ভারত, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও ইরান।

দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন, উৎপাদনে সহায়তার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো স্থায়ী ভেন্যু বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টারে বাণিজ্যমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বর্তমানে এটি বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টার নামে পরিচিত। এই এক্সিবিশন সেন্টারটি নির্মাণে মোট ব্যয় হয় ৭৭৩ কোটি টাকা।

কীভাবে যাবেন বাণিজ্যমেলায়?

কুড়িল বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের দুরত্ব প্রায় ১৬ কিলোমিটার। রাস্তা ফাঁকা থাকলে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলায় পৌঁছাতে সময় লাগতে পারে ৫০ মিনিট।

আর যানজট থাকলে দেড় ঘণ্টাও লাগতে পারে বাণিজ্য মেলায় পৌঁছাতে। তাই হাতে সময় নিয়ে বের হওয়া ভালো। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে গেলে পার্কিংয়ের ঝামেলায় পড়তে হবে না। কারণ যথেষ্ট জায়গা আছে পার্কিংয়ের জন্য।

বিআরটিসি বাস ছাড়াও অন্যান্য যাত্রীবাহী বাসে বাণিজ্যমেলায় পৌঁছাতে জনপ্রতি গুনতে হবে ৪০ টাকা। নামতে হবে কাঞ্চনব্রিজে। সেখান থেকে ১০-২০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে পারবেন।