Dhaka , Monday, 30 January 2023

গ্যাসের দাম ফের বাড়লো

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 01:55:31 pm, Wednesday, 18 January 2023
  • 16 বার

নিউজ ডেস্ক: ভর্তুকি সমন্বয়ের লক্ষ্যে বিদ্যুতের পর এবার শিল্পখাতে আরও এক দফা প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে সরকার। তবে আবাসিক, সিএনজি ও চা শিল্পের গ্যাসের দাম আগের মতোই থাকছে। দাম বেড়েছে বিদ্যুৎ, শিল্প ও বাণিজ্যিক খাতে। নতুন এ দাম আগামী ফেব্রুয়ারি মাস থেকে কার্যকর হবে।

বুধবার (১৮ জানুয়ারি) বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের উপ-সচিব শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিদ্যুৎ খাতে সরবরাহ করা প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৫ টাকা ২ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৪ টাকা করা হয়েছে। শিল্পখাতে ১৬ টাকার গ্যাসের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা।

ক্যাভটিভ পাওয়ার (শিল্প কারখানার নিজস্ব বিদ্যুৎ উৎপাদনে) খাতে গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটারে ১৬ টাকা থেকে ৩০ টাকা, বৃহৎ শিল্পে ১১ টাকা ৯৮ পয়সা থেকে ৩০ টাকা, মাঝারি শিল্পে ১১ টাকা ৭৮ পয়সা থেকে ৩০ টাকা এবং ক্ষুদ্র শিল্পে ১০ দশমিক ৭৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

একই সঙ্গে বাণিজ্যিক গ্যাস সংযোগের ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটারে ২৬ টাকা ৬৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আবাসিক গ্রাহকদের আগের মতোই এক চুলার দাম ৯৯০ টাকা এবং দুই চুলার দাম ১ হাজার ৮০ টাকা থাকছে।

এছাড়াও সিএনজিতে প্রতি ঘনমিটার ৪৩ টাকা এবং চা শিল্পের গ্যাসের দাম আগের মতো প্রতি ঘনমিটার ১১ টাকা ৯৩ পয়সা রয়েছে। সার কারখানায় ব্যবহৃত গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটার আগের মতো ১৬ টাকা রাখা হয়েছে।

গত বছরের ৫ জুন বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গ্যাসের দাম বাড়িয়েছিল। যেখানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের পাইকারি দাম ৯ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ২২ দশমিক ৭৮ শতাংশ বাড়িয়ে ১১ টাকা ৯১ পয়সা করেছিল বিইআরসি। যা ওই বছরের জুন মাস থেকে কার্যকর হয়।

তখন আবাসিক খাতে প্রাকৃতিক গ্যাসের মাসিক বিল দুই চুলার ক্ষেত্রে ১ হাজার ৮০ টাকা ও এক চুলার ক্ষেত্রে ৯৯০ টাকা নির্ধারণ করে বিইআরসি। এর আগে দুই চুলা ৯৭৫ টাকা ও এক চুলা ব্যবহারে গ্রাহকদের দিতে হতো ৯২৫ টাকা।

ওই সময় বড় শিল্প কারখানার জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে ১১ টাকা ৯৮ পয়সা, মাঝারি শিল্পগুলোর জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার পরিবর্তে ১১ টাকা ৭৮ পয়সা, ক্ষুদ্র, কুটির ও অন্য শিল্পগুলোর জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে করা হয় ১১ টাকা ৯৩ পয়সা।

এদিকে গত ১২ জানুয়ারি সরকারের এক নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়। যেখানে ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের খুচরা দাম ইউনিটপ্রতি ১৯ পয়সা বাড়ানো হয়েছে। বছরের প্রথম দিন গত ১ জানুয়ারি থেকে নতুন দাম কার্যকর হয়েছে। একই সঙ্গে এখন থেকে প্রতি মাসে বিদ্যুতের খুচরা দাম নিয়মিত সমন্বয় করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

গ্যাসের দাম ফের বাড়লো

আপডেট টাইম : 01:55:31 pm, Wednesday, 18 January 2023

নিউজ ডেস্ক: ভর্তুকি সমন্বয়ের লক্ষ্যে বিদ্যুতের পর এবার শিল্পখাতে আরও এক দফা প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে সরকার। তবে আবাসিক, সিএনজি ও চা শিল্পের গ্যাসের দাম আগের মতোই থাকছে। দাম বেড়েছে বিদ্যুৎ, শিল্প ও বাণিজ্যিক খাতে। নতুন এ দাম আগামী ফেব্রুয়ারি মাস থেকে কার্যকর হবে।

বুধবার (১৮ জানুয়ারি) বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের উপ-সচিব শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিদ্যুৎ খাতে সরবরাহ করা প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৫ টাকা ২ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৪ টাকা করা হয়েছে। শিল্পখাতে ১৬ টাকার গ্যাসের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা।

ক্যাভটিভ পাওয়ার (শিল্প কারখানার নিজস্ব বিদ্যুৎ উৎপাদনে) খাতে গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটারে ১৬ টাকা থেকে ৩০ টাকা, বৃহৎ শিল্পে ১১ টাকা ৯৮ পয়সা থেকে ৩০ টাকা, মাঝারি শিল্পে ১১ টাকা ৭৮ পয়সা থেকে ৩০ টাকা এবং ক্ষুদ্র শিল্পে ১০ দশমিক ৭৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

একই সঙ্গে বাণিজ্যিক গ্যাস সংযোগের ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটারে ২৬ টাকা ৬৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আবাসিক গ্রাহকদের আগের মতোই এক চুলার দাম ৯৯০ টাকা এবং দুই চুলার দাম ১ হাজার ৮০ টাকা থাকছে।

এছাড়াও সিএনজিতে প্রতি ঘনমিটার ৪৩ টাকা এবং চা শিল্পের গ্যাসের দাম আগের মতো প্রতি ঘনমিটার ১১ টাকা ৯৩ পয়সা রয়েছে। সার কারখানায় ব্যবহৃত গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটার আগের মতো ১৬ টাকা রাখা হয়েছে।

গত বছরের ৫ জুন বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গ্যাসের দাম বাড়িয়েছিল। যেখানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের পাইকারি দাম ৯ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ২২ দশমিক ৭৮ শতাংশ বাড়িয়ে ১১ টাকা ৯১ পয়সা করেছিল বিইআরসি। যা ওই বছরের জুন মাস থেকে কার্যকর হয়।

তখন আবাসিক খাতে প্রাকৃতিক গ্যাসের মাসিক বিল দুই চুলার ক্ষেত্রে ১ হাজার ৮০ টাকা ও এক চুলার ক্ষেত্রে ৯৯০ টাকা নির্ধারণ করে বিইআরসি। এর আগে দুই চুলা ৯৭৫ টাকা ও এক চুলা ব্যবহারে গ্রাহকদের দিতে হতো ৯২৫ টাকা।

ওই সময় বড় শিল্প কারখানার জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে ১১ টাকা ৯৮ পয়সা, মাঝারি শিল্পগুলোর জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার পরিবর্তে ১১ টাকা ৭৮ পয়সা, ক্ষুদ্র, কুটির ও অন্য শিল্পগুলোর জন্য ১০ টাকা ৭০ পয়সার প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে করা হয় ১১ টাকা ৯৩ পয়সা।

এদিকে গত ১২ জানুয়ারি সরকারের এক নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়। যেখানে ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের খুচরা দাম ইউনিটপ্রতি ১৯ পয়সা বাড়ানো হয়েছে। বছরের প্রথম দিন গত ১ জানুয়ারি থেকে নতুন দাম কার্যকর হয়েছে। একই সঙ্গে এখন থেকে প্রতি মাসে বিদ্যুতের খুচরা দাম নিয়মিত সমন্বয় করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।