Dhaka , Saturday, 22 June 2024

ইসলামফোবিয়া মোকাবিলায় বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ দিলো কানাডা

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:15:29 am, Friday, 27 January 2023
  • 35 বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইসলামফোবিয়া মোকাবিলায় প্রথমবারের মতো বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ দিয়েছে কানাডা। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে মুসলিমদের লক্ষ্য করে ধারাবাহিক হামলার পর ঘৃণা ও বৈষম্য রোধ করতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো মানবাধিকার আইনজীবী আমিরা এলঘাবাবি এই পদে নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন। আমিরা এলঘাবাবি ইসলামোফোবিয়ার অবসানে অটোয়ার প্রচেষ্টাকে সমর্থন জানাতে এবং সরকারী নীতি, আইন এবং অন্যান্য কর্মসূচির বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার কাজটি করবেন।

এক বিবৃতিতে ট্রুডো বলেছেন, ‘বৈচিত্র্য সত্যিই কানাডার সবচেয়ে বড় শক্তির একটি, কিন্তু অনেক মুসলমানের কাছে ইসলামফোবিয়া খুবই পরিচিত। আমাদের এটা পরিবর্তন করতে হবে। আমাদের দেশে কাউকে বিশ্বাসের কারণে ঘৃণা করা উচিত নয়।’

বহু বছর ধরেই কানাডার মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতারা বর্ণবাদ, ঘৃণা-প্রণোদিত সহিংসতা এবং অতি-ডানপন্থী গোষ্ঠীগুলির প্রসার মোকাবিলা করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছেন।

২০২০ সালে গবেষকরা দেখেছেন যে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে কানাডায় সক্রিয় বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা তিনগুণ বেড়েছে। অনলাইনে ডানপন্থী চরমপন্থীদের মধ্যে ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ’ বিষয়গুলোর মধ্যে একটি ছিল মুসলিমবিরোধী বক্তব্য।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

ইসলামফোবিয়া মোকাবিলায় বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ দিলো কানাডা

আপডেট টাইম : 08:15:29 am, Friday, 27 January 2023

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইসলামফোবিয়া মোকাবিলায় প্রথমবারের মতো বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ দিয়েছে কানাডা। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে মুসলিমদের লক্ষ্য করে ধারাবাহিক হামলার পর ঘৃণা ও বৈষম্য রোধ করতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো মানবাধিকার আইনজীবী আমিরা এলঘাবাবি এই পদে নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন। আমিরা এলঘাবাবি ইসলামোফোবিয়ার অবসানে অটোয়ার প্রচেষ্টাকে সমর্থন জানাতে এবং সরকারী নীতি, আইন এবং অন্যান্য কর্মসূচির বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার কাজটি করবেন।

এক বিবৃতিতে ট্রুডো বলেছেন, ‘বৈচিত্র্য সত্যিই কানাডার সবচেয়ে বড় শক্তির একটি, কিন্তু অনেক মুসলমানের কাছে ইসলামফোবিয়া খুবই পরিচিত। আমাদের এটা পরিবর্তন করতে হবে। আমাদের দেশে কাউকে বিশ্বাসের কারণে ঘৃণা করা উচিত নয়।’

বহু বছর ধরেই কানাডার মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতারা বর্ণবাদ, ঘৃণা-প্রণোদিত সহিংসতা এবং অতি-ডানপন্থী গোষ্ঠীগুলির প্রসার মোকাবিলা করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছেন।

২০২০ সালে গবেষকরা দেখেছেন যে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে কানাডায় সক্রিয় বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা তিনগুণ বেড়েছে। অনলাইনে ডানপন্থী চরমপন্থীদের মধ্যে ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ’ বিষয়গুলোর মধ্যে একটি ছিল মুসলিমবিরোধী বক্তব্য।