Dhaka , Saturday, 22 June 2024

দুই অর্ধে খেললো দুই দল, লাইপজিগের সঙ্গে সিটির ড্র

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:01:02 am, Thursday, 23 February 2023
  • 34 বার

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রথমার্ধে দাপট দেখাল ম্যানচেস্টার সিটি। দ্বিতীয়ার্ধে আধিপত্য করল লাইপজিগ। দুই অর্ধে যেন খেলল দুই দল। দুই অর্ধের মতো ম্যাচের ফলও শেষ হলো সমতায়।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচটি ১-১ ড্র হয়েছে। প্রথমার্ধে রিয়াদ মাহরেজ সিটিকে এগিয়ে নেওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে সমতা ফেরান ইয়োস্কো গাভারদিওল।

দ্বিতীয়ার্ধে স্পষ্টতই পাল্টে যায় দুই দলের খেলা। এতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন লাইপজিগের বদলি খেলোয়াড়রা। তবে বিস্ময়করভাবে শুরুর একাদশে কোনো পরিবর্তন আনেননি সিটি কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা।

প্রতিপক্ষের মাঠে বল দখল ও আক্রমণে শুরু থেকে আধিপত্য করে সিটি। পথ খুঁজতে থাকে লাইপজিগের রক্ষণ ভাঙার। প্রথম পনের মিনিটে সেভাবে সুবিধা করতে পারেনি ইংলিশ চ্যাম্পিয়নরা। জার্মানির দলটির রক্ষণের ভুলে ২৭তম মিনিটে এগিয়ে যায় তারা।

দুর্বল পাস মাঝ পথে আটকে দিয়ে জ্যাক গ্রিলিশ খুঁজে নেন ইলকাই গিনদোয়ানকে। জার্মান এই মিডফিল্ডারের ফ্লিকে বল পেয়ে পেনাল্টি স্পটের কাছ থেকে গোলটি করেন মাহরেজ।

তিন মিনিট পর বাড়তে পারত ব্যবধান। তবে কর্নারে একটুর জন্য মাথা ছোঁয়াতে পারেননি রদ্রি।

৩৬তম মিনিটে ডি-বক্স থেকে গ্রিলিশের শট বেরিয়ে যায় দূরের পোস্ট ঘেঁষে। চার মিনিট পর আরেকটি কর্নারে সুযোগ আসে রদ্রির সামনে। এবার মাথা ছোঁয়াতে পারলেও লক্ষ্যে রাখতে পারেননি স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের অন্তিম শটে প্রথমবারের মতো কোনো চেষ্টা লক্ষ্যে রাখতে পারে লাইপজিগ। টিমো ভের্নারের আড়াআড়ি শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন সিটি গোলরক্ষক এদেরসন।

দ্বিতীয়ার্ধে বেশ আক্রমণাত্মক শুরু করে লাইপজিগ। প্রথমার্ধে তেমন অভিপ্রায় দেখাতে না পারা দলটি দুই মিনিটের মধ্যে দুটি দারুণ সুযোগ তৈরি করে।

বিরতির সময় বদলি নামা বেনিয়ামিন হেনরিকস একটুর জন্য হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি। ৫৫তম মিনিটে জার্মানির এই ডিফেন্ডারের আড়াআড়ি শট বেরিয়ে যায় দূরের পোস্ট ঘেঁষে। বেঁচে যায় সিটি।

৬৩তম মিনিটে দারুণ ঝলক দেখান আন্দ্রে সিলভা। গতি আর পায়ের কারিকুরিতে সিটির দুই খেলোয়াড়কে দারুণভাবে এড়িয়ে এগিয়ে যান পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড। কিন্তু ওয়ান-অন-ওয়ানে তার শট ব্যর্থ করে দেন এদেরসন।

নিজেদের অর্ধ থেকেই বের হতে না পারা সিটি ৬৮তম মিনিটে বাড়াতে পারত ব্যবধান। প্রতি-আক্রমণ থেকে বল পেয়ে আর্লিং হলান্ড একটুর জন্য শট রাখতে পারেননি লক্ষ্যে।

দুই মিনিট পর লাইপজিগের আরেকটি চেষ্টা কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান এদেরসন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। শর্ট কর্নার থেকে মার্সেল হালস্টেনবার্গের ক্রসে সবার উঁচুতে লাফিয়ে দারুণ হেডে জাল খুঁজে নেন ক্রোয়াট ডিফেন্ডার গাভারদিওল।

গোল হজমের পর কিছুটা আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে সিটি। তবে রক্ষণে সেধিয়ে যায়নি লাইপজিগ। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচ। দুই মিনিট যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে সিটির একটি আক্রমণ রুখে দেন স্বাগতিক গোলরক্ষক।

আগামী ১৪ মার্চ সিটির মাঠে ফিরতি লেগে নির্ধারিত হবে দুই দলের ভাগ্য।

একই সময়ে হওয়া অন্য ম্যাচে ঘরের মাঠে পোর্তোকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ইন্টার মিলান। ৮৬তম মিনিটে ব্যবধান গড়ে দেন চেলসি থেকে ধারে খেলা বেলজিয়ান স্ট্রাইকার রোমেলু লুকাকু। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবশেষ ১৫ ম্যাচে এটি তার দশম গোল।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

দুই অর্ধে খেললো দুই দল, লাইপজিগের সঙ্গে সিটির ড্র

আপডেট টাইম : 08:01:02 am, Thursday, 23 February 2023

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রথমার্ধে দাপট দেখাল ম্যানচেস্টার সিটি। দ্বিতীয়ার্ধে আধিপত্য করল লাইপজিগ। দুই অর্ধে যেন খেলল দুই দল। দুই অর্ধের মতো ম্যাচের ফলও শেষ হলো সমতায়।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচটি ১-১ ড্র হয়েছে। প্রথমার্ধে রিয়াদ মাহরেজ সিটিকে এগিয়ে নেওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে সমতা ফেরান ইয়োস্কো গাভারদিওল।

দ্বিতীয়ার্ধে স্পষ্টতই পাল্টে যায় দুই দলের খেলা। এতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন লাইপজিগের বদলি খেলোয়াড়রা। তবে বিস্ময়করভাবে শুরুর একাদশে কোনো পরিবর্তন আনেননি সিটি কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা।

প্রতিপক্ষের মাঠে বল দখল ও আক্রমণে শুরু থেকে আধিপত্য করে সিটি। পথ খুঁজতে থাকে লাইপজিগের রক্ষণ ভাঙার। প্রথম পনের মিনিটে সেভাবে সুবিধা করতে পারেনি ইংলিশ চ্যাম্পিয়নরা। জার্মানির দলটির রক্ষণের ভুলে ২৭তম মিনিটে এগিয়ে যায় তারা।

দুর্বল পাস মাঝ পথে আটকে দিয়ে জ্যাক গ্রিলিশ খুঁজে নেন ইলকাই গিনদোয়ানকে। জার্মান এই মিডফিল্ডারের ফ্লিকে বল পেয়ে পেনাল্টি স্পটের কাছ থেকে গোলটি করেন মাহরেজ।

তিন মিনিট পর বাড়তে পারত ব্যবধান। তবে কর্নারে একটুর জন্য মাথা ছোঁয়াতে পারেননি রদ্রি।

৩৬তম মিনিটে ডি-বক্স থেকে গ্রিলিশের শট বেরিয়ে যায় দূরের পোস্ট ঘেঁষে। চার মিনিট পর আরেকটি কর্নারে সুযোগ আসে রদ্রির সামনে। এবার মাথা ছোঁয়াতে পারলেও লক্ষ্যে রাখতে পারেননি স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের অন্তিম শটে প্রথমবারের মতো কোনো চেষ্টা লক্ষ্যে রাখতে পারে লাইপজিগ। টিমো ভের্নারের আড়াআড়ি শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন সিটি গোলরক্ষক এদেরসন।

দ্বিতীয়ার্ধে বেশ আক্রমণাত্মক শুরু করে লাইপজিগ। প্রথমার্ধে তেমন অভিপ্রায় দেখাতে না পারা দলটি দুই মিনিটের মধ্যে দুটি দারুণ সুযোগ তৈরি করে।

বিরতির সময় বদলি নামা বেনিয়ামিন হেনরিকস একটুর জন্য হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি। ৫৫তম মিনিটে জার্মানির এই ডিফেন্ডারের আড়াআড়ি শট বেরিয়ে যায় দূরের পোস্ট ঘেঁষে। বেঁচে যায় সিটি।

৬৩তম মিনিটে দারুণ ঝলক দেখান আন্দ্রে সিলভা। গতি আর পায়ের কারিকুরিতে সিটির দুই খেলোয়াড়কে দারুণভাবে এড়িয়ে এগিয়ে যান পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড। কিন্তু ওয়ান-অন-ওয়ানে তার শট ব্যর্থ করে দেন এদেরসন।

নিজেদের অর্ধ থেকেই বের হতে না পারা সিটি ৬৮তম মিনিটে বাড়াতে পারত ব্যবধান। প্রতি-আক্রমণ থেকে বল পেয়ে আর্লিং হলান্ড একটুর জন্য শট রাখতে পারেননি লক্ষ্যে।

দুই মিনিট পর লাইপজিগের আরেকটি চেষ্টা কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান এদেরসন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। শর্ট কর্নার থেকে মার্সেল হালস্টেনবার্গের ক্রসে সবার উঁচুতে লাফিয়ে দারুণ হেডে জাল খুঁজে নেন ক্রোয়াট ডিফেন্ডার গাভারদিওল।

গোল হজমের পর কিছুটা আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে সিটি। তবে রক্ষণে সেধিয়ে যায়নি লাইপজিগ। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচ। দুই মিনিট যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে সিটির একটি আক্রমণ রুখে দেন স্বাগতিক গোলরক্ষক।

আগামী ১৪ মার্চ সিটির মাঠে ফিরতি লেগে নির্ধারিত হবে দুই দলের ভাগ্য।

একই সময়ে হওয়া অন্য ম্যাচে ঘরের মাঠে পোর্তোকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ইন্টার মিলান। ৮৬তম মিনিটে ব্যবধান গড়ে দেন চেলসি থেকে ধারে খেলা বেলজিয়ান স্ট্রাইকার রোমেলু লুকাকু। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবশেষ ১৫ ম্যাচে এটি তার দশম গোল।