Dhaka , Wednesday, 24 April 2024

আমিরাতে বাঁধন থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:30:46 am, Saturday, 25 March 2023
  • 40 বার

প্রবাস ডেস্ক: সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাঁধন থিয়েটার একটি ব্যতিক্রমী সংগঠন। দেশীয় সংস্কৃতি চর্চায় দূর প্রবাসে নাট্য সংগঠনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। আবহমান বাংলার মূল সংস্কৃতিকে প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে দেশে দেশে এরকম সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রয়োজন রয়েছে। সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রাখতে এরকম সংগঠনকে সহযোগিতা করা উচিত।

বাংলাদেশ সমিতি শারজার বঙ্গবন্ধু হলরুমে মহান স্বাধীনতা ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ‘বাংলার ঘরে ঘরে-৫’ এবং পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন এসব কথা বলেন।

প্রকৌশলী জহুর হোসাইন শাহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দীন পলাশের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কনস্যুলেট লেডিস গ্রুপের সভাপতি আবিদা হোসেন, প্রকৌশলী আবু জাফর, মাজহারুল্লাহ মিয়া, নুরুন্নবী রওশন, প্রকৌশলী মুরশেদ প্রমুখ।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মামুনুর রশীদ বলেন, আমাদের মূল বিষয় নাট্য চর্চা হলেও আমরা এতেই সীমাবদ্ধ নই। বাংলা সংস্কৃতির প্রতিটি ক্ষেত্রেই রয়েছে আমাদের পদচারণা। যাতে রয়েছে সংগীত, নৃত্য ও সাহিত্য চর্চা। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা ২০০২ সাল থেকে এ পর্যন্ত প্রায় দুই যুগ ধরে এই আরব আমিরাতের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নানা অনুষ্ঠান করেছি।

তিনি বলেন, বাঁধন থিয়েটার এ পর্যন্ত একাধিক নাটক, নাটিকাসহ অনেক সংগীতানুষ্ঠান সফলতার সঙ্গে করেছে। কনস্যুলেট মঞ্চসহ আমিরাতের বিভিন্ন মঞ্চে আমরা বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, পহেলা বৈশাখ, বাংলা ভাষা দিবস, নজরুল-রবীন্দ্র জয়ন্তীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের নিমন্ত্রণে অসংখ্য নাটক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে প্রচুর সুনাম অর্জন করেছি। আর সে কারণেই বাঁধন থিয়েটার এখন আরব আমিরাতে একটি পরিচিত নাম। আমরা এ পর্যন্ত নিজেদের প্রযোজনায় ৫৩টি এবং অন্যদের ব্যানারে ৪৫টিসহ মোট ৯৮টি অনুষ্ঠান সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করেছি। এছাড়াও বাঁধন থিয়েটার বাংলা সংস্কৃতি চর্চায় বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অবদান রাখার জন্য নাট্য, সংগীত, নৃত্য ও সাহিত্যের ওপর ৫১টি সম্মাননা প্রদান করেছে।

এ দিন আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়েছে বাঁধনের দুই প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সৈয়দ খোরশেদ আলম, মুহাম্মদ শাহজাহানকে। করোনার সময় থেকে ‘বাঁধন পাঠশালা’ নামে অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে প্রবাসী শিশুদের মধ্যে বাংলা ভাষা শিক্ষাদান করায় সুমনা দাসকে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ শাহজাহান, মাকসুদা খানম, সৈয়দ খোরশেদ আলম, নাজমা জর্জ, উত্তম বড়ুয়া, সবুজ, সাউদ্দিন, ইয়াসিন মোল্লা, তিথি সরকার, উত্তম বাবু, শিপন কর্মকার ও মিতা সাহা।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

আমিরাতে বাঁধন থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

আপডেট টাইম : 08:30:46 am, Saturday, 25 March 2023

প্রবাস ডেস্ক: সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাঁধন থিয়েটার একটি ব্যতিক্রমী সংগঠন। দেশীয় সংস্কৃতি চর্চায় দূর প্রবাসে নাট্য সংগঠনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। আবহমান বাংলার মূল সংস্কৃতিকে প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে দেশে দেশে এরকম সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রয়োজন রয়েছে। সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রাখতে এরকম সংগঠনকে সহযোগিতা করা উচিত।

বাংলাদেশ সমিতি শারজার বঙ্গবন্ধু হলরুমে মহান স্বাধীনতা ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ‘বাংলার ঘরে ঘরে-৫’ এবং পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন এসব কথা বলেন।

প্রকৌশলী জহুর হোসাইন শাহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দীন পলাশের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কনস্যুলেট লেডিস গ্রুপের সভাপতি আবিদা হোসেন, প্রকৌশলী আবু জাফর, মাজহারুল্লাহ মিয়া, নুরুন্নবী রওশন, প্রকৌশলী মুরশেদ প্রমুখ।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মামুনুর রশীদ বলেন, আমাদের মূল বিষয় নাট্য চর্চা হলেও আমরা এতেই সীমাবদ্ধ নই। বাংলা সংস্কৃতির প্রতিটি ক্ষেত্রেই রয়েছে আমাদের পদচারণা। যাতে রয়েছে সংগীত, নৃত্য ও সাহিত্য চর্চা। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা ২০০২ সাল থেকে এ পর্যন্ত প্রায় দুই যুগ ধরে এই আরব আমিরাতের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নানা অনুষ্ঠান করেছি।

তিনি বলেন, বাঁধন থিয়েটার এ পর্যন্ত একাধিক নাটক, নাটিকাসহ অনেক সংগীতানুষ্ঠান সফলতার সঙ্গে করেছে। কনস্যুলেট মঞ্চসহ আমিরাতের বিভিন্ন মঞ্চে আমরা বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, পহেলা বৈশাখ, বাংলা ভাষা দিবস, নজরুল-রবীন্দ্র জয়ন্তীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের নিমন্ত্রণে অসংখ্য নাটক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে প্রচুর সুনাম অর্জন করেছি। আর সে কারণেই বাঁধন থিয়েটার এখন আরব আমিরাতে একটি পরিচিত নাম। আমরা এ পর্যন্ত নিজেদের প্রযোজনায় ৫৩টি এবং অন্যদের ব্যানারে ৪৫টিসহ মোট ৯৮টি অনুষ্ঠান সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করেছি। এছাড়াও বাঁধন থিয়েটার বাংলা সংস্কৃতি চর্চায় বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অবদান রাখার জন্য নাট্য, সংগীত, নৃত্য ও সাহিত্যের ওপর ৫১টি সম্মাননা প্রদান করেছে।

এ দিন আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়েছে বাঁধনের দুই প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সৈয়দ খোরশেদ আলম, মুহাম্মদ শাহজাহানকে। করোনার সময় থেকে ‘বাঁধন পাঠশালা’ নামে অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে প্রবাসী শিশুদের মধ্যে বাংলা ভাষা শিক্ষাদান করায় সুমনা দাসকে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ শাহজাহান, মাকসুদা খানম, সৈয়দ খোরশেদ আলম, নাজমা জর্জ, উত্তম বড়ুয়া, সবুজ, সাউদ্দিন, ইয়াসিন মোল্লা, তিথি সরকার, উত্তম বাবু, শিপন কর্মকার ও মিতা সাহা।