Dhaka , Wednesday, 24 April 2024

মালয়েশিয়ায় হাইকমিশনে ২ মিনিটের পাসপোর্ট সেবা নিতে লাগছে দুই মাস

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:20:51 am, Friday, 14 April 2023
  • 37 বার

মালয়েশিয়া ডেস্ক: মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী বাংলাদেশিদের পাসপোর্ট প্রাপ্তিতে জটিলতা যেন শেষ হওয়ার নয়। পাসপোর্ট নবায়নের আবেদন প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতায় বাড়ছে ভোগান্তি। দুই মিনিটের সেবা নিতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে দুই মাস। হাইকমিশনের ডিজিটাল সেবার গ্যাড়াকলে ভোগান্তিতে পড়েছেন পাসপোর্টপ্রত্যাশীরা। বিশেষ করে, রাজধানী কুয়ালালামপুরে বসবাসকারীদের ভোগান্তি চরমে।

 

সাধারণত পাসপোর্ট নবায়ন এবং গ্রহণ করতে সেবাগ্রহীতাকে স্বশরীরে হাইকমিশনে উপস্থিত হতে হয়। তবে, করোনাকালে লকডাউন থাকায় প্রবাসীদের নির্বিঘ্নে সেবা দিতে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ এবং ডেলিভারির নিয়ম চালু করে হাইকমিশন। শুরুতে এমন উদ্যোগ প্রসংশা কুড়ালেও ছিল নানা অভিযোগ।

 

অভিযোগ আছে, পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্টের আবেদন পাঠিয়ে এনরোলমেন্ট নাম্বার পেতে অপেক্ষা করতে হয় এক থেকে দেড় মাস। এরপর পাসপোর্ট ডেলিভারি পেতে অনলাইনে আবেদন করে অপেক্ষা আরও প্রায় এক মাস। পোস্ট অফিস থেকে ডেলিভারি নিতে এপয়েন্টমেন্টর তিন কর্মদিবসে বারকোড পাওয়ার কথা বললেও অপেক্ষা করতে হয় ১৫ থেকে ২০ দিন।

 

বর্তমানে করোনার প্রভাব না থাকায় সবকিছু স্বাভাবিক হলেও হাইকমিশনের পাসপোর্ট সেবার নিয়ম আছে আগের মতোই। প্রবাসীদের পাসপোর্ট প্রাপ্তিতে দীর্ঘসূত্রতার কারণে মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা নেওয়ার সুযোগ গতবারের মতো এবারও হাতছাড়া হওয়ার আশঙ্কা আছে অনেকের।

 

গোপালগঞ্জের মারুফ হাসান জানান, তার বাসা থেকে আমপাং পাসপোর্ট অফিসে হেঁটে যেতে সময় লাগে দুই মিনিটেরও কম। অথচ পোস্ট অফিসে আবেদন পাঠিয়ে দুই মাসের বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে তাকে। একই অভিযোগ করেন কুমিল্লার জসিম হাওলাদারও।

 

রাজশাহীর সুভাস সাহা বলেন, অনলাইনে এপয়েন্টমেন্ট নিতে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সার্চ করলে Passport not found দেখায়। হাইকমিশনের হটলাইনে ফোন করলে কেউ রিসিভ করেন না। এ অবস্থায় সময়মতো পাসপোর্ট না পেলে অবৈধ হওয়ার আশঙ্কা আছে।

 

মুন্সীগঞ্জের রুবেল বিশ্বাস বলেন, কুয়ালামপুরে বসবাসকারীদের স্বশরীরে আবেদন জমা এবং পাসপোর্ট ডেলিভারি নেওয়ার ক্ষেত্রে আগের নিয়ম চালু হলে ভোগান্তি অনেকটাই কমবে।

 

এ বিষয়ে হাইকমিশনের পাসপোর্ট কনস্যুলার মিয়া কিয়ামুদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, পাসপোর্ট সেবা সহজ করার লক্ষ্যে দূতাবাস কাজ করছে। জনবল সঙ্কটের কারণে সেবাগ্রহীতাদের পাসপোর্ট পেতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

মালয়েশিয়ায় হাইকমিশনে ২ মিনিটের পাসপোর্ট সেবা নিতে লাগছে দুই মাস

আপডেট টাইম : 08:20:51 am, Friday, 14 April 2023

মালয়েশিয়া ডেস্ক: মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী বাংলাদেশিদের পাসপোর্ট প্রাপ্তিতে জটিলতা যেন শেষ হওয়ার নয়। পাসপোর্ট নবায়নের আবেদন প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতায় বাড়ছে ভোগান্তি। দুই মিনিটের সেবা নিতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে দুই মাস। হাইকমিশনের ডিজিটাল সেবার গ্যাড়াকলে ভোগান্তিতে পড়েছেন পাসপোর্টপ্রত্যাশীরা। বিশেষ করে, রাজধানী কুয়ালালামপুরে বসবাসকারীদের ভোগান্তি চরমে।

 

সাধারণত পাসপোর্ট নবায়ন এবং গ্রহণ করতে সেবাগ্রহীতাকে স্বশরীরে হাইকমিশনে উপস্থিত হতে হয়। তবে, করোনাকালে লকডাউন থাকায় প্রবাসীদের নির্বিঘ্নে সেবা দিতে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ এবং ডেলিভারির নিয়ম চালু করে হাইকমিশন। শুরুতে এমন উদ্যোগ প্রসংশা কুড়ালেও ছিল নানা অভিযোগ।

 

অভিযোগ আছে, পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্টের আবেদন পাঠিয়ে এনরোলমেন্ট নাম্বার পেতে অপেক্ষা করতে হয় এক থেকে দেড় মাস। এরপর পাসপোর্ট ডেলিভারি পেতে অনলাইনে আবেদন করে অপেক্ষা আরও প্রায় এক মাস। পোস্ট অফিস থেকে ডেলিভারি নিতে এপয়েন্টমেন্টর তিন কর্মদিবসে বারকোড পাওয়ার কথা বললেও অপেক্ষা করতে হয় ১৫ থেকে ২০ দিন।

 

বর্তমানে করোনার প্রভাব না থাকায় সবকিছু স্বাভাবিক হলেও হাইকমিশনের পাসপোর্ট সেবার নিয়ম আছে আগের মতোই। প্রবাসীদের পাসপোর্ট প্রাপ্তিতে দীর্ঘসূত্রতার কারণে মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা নেওয়ার সুযোগ গতবারের মতো এবারও হাতছাড়া হওয়ার আশঙ্কা আছে অনেকের।

 

গোপালগঞ্জের মারুফ হাসান জানান, তার বাসা থেকে আমপাং পাসপোর্ট অফিসে হেঁটে যেতে সময় লাগে দুই মিনিটেরও কম। অথচ পোস্ট অফিসে আবেদন পাঠিয়ে দুই মাসের বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে তাকে। একই অভিযোগ করেন কুমিল্লার জসিম হাওলাদারও।

 

রাজশাহীর সুভাস সাহা বলেন, অনলাইনে এপয়েন্টমেন্ট নিতে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সার্চ করলে Passport not found দেখায়। হাইকমিশনের হটলাইনে ফোন করলে কেউ রিসিভ করেন না। এ অবস্থায় সময়মতো পাসপোর্ট না পেলে অবৈধ হওয়ার আশঙ্কা আছে।

 

মুন্সীগঞ্জের রুবেল বিশ্বাস বলেন, কুয়ালামপুরে বসবাসকারীদের স্বশরীরে আবেদন জমা এবং পাসপোর্ট ডেলিভারি নেওয়ার ক্ষেত্রে আগের নিয়ম চালু হলে ভোগান্তি অনেকটাই কমবে।

 

এ বিষয়ে হাইকমিশনের পাসপোর্ট কনস্যুলার মিয়া কিয়ামুদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, পাসপোর্ট সেবা সহজ করার লক্ষ্যে দূতাবাস কাজ করছে। জনবল সঙ্কটের কারণে সেবাগ্রহীতাদের পাসপোর্ট পেতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।