Dhaka , Saturday, 2 March 2024

কায়রো অপেরা হাউজে ‘বাংলাদেশ রামাদান নাইট’

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:19:18 am, Saturday, 15 April 2023
  • 31 বার

প্রবাস ডেস্ক: মিশরের রাজধানী কায়রো মহানগরীর কেন্দ্রস্থল দিয়ে প্রবাহিত ঐতিহাসিক নীলনদ। এই নীলনদের তীরে অবস্থিত বিখ্যাত (দার এল-অপেরা-ইল-মাসরিয়া) কায়রো অপেরা হাউজ। এখানেই রাতে বেজে ওঠে বাঙালির চিরপরিচিত বাংলা গানের মধুর সুর, বাংলা কবিতার ছন্দের মোহিনি এবং হাস্যরসের কৌতুক। অপেরা হাউজের কানায় কানায় ভরে যায় মিশরপ্রবাসী বাংলাদেশি এবং মিশরীয় দর্শক শ্রোতায়।

‘বাংলাদেশ রামাদান নাইটস’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রতিটি মুহূর্ত হয়ে উঠে আনন্দ বিনোদনের স্মরণীয় ঘটনা। শিশির সরকারের সঞ্চালনায় পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত এবং মিশরে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মো. মনিরুল ইসলামের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হয় রাতের জমকালো আয়োজন।

বিশ্বখ্যাত আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশি ছাত্রের একটি দল বাংলা ও আরবি ভাষায় সঙ্গীত পরিবেশন করে।

কায়রোস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দূতাবাসের প্রবাসী বাংলাদেশি শিল্পীরা দূতাবাস এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিয়ে গঠিত দলের পরিবেশিত সঙ্গীত সবাইকে বিমুগ্ধ করে। প্রতিটি গান শেষ হওয়ার সাথে সাথে সবাই করতালিতে ফেটে পড়ে। মিশরের জনপ্রিয় কায়রো অপেরা হাউজে এ ধরনের একটি উপভোগ্য বৈচিত্র্যময় অনুষ্ঠান মধ্যরাত অবধি বসে বসে দেখতে পেরে সবাই উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি আশা প্রকাশ করি ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে এ জাতীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারব। যেখানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ বাঙালির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে স্বচক্ষে দেখতে পাবে।

রাষ্ট্রদূত অনুষ্ঠান শেষে কায়রো অপেরা হাউজের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কৃতজ্ঞতা জানান। বাংলাদেশ ছাড়াও বিভিন্ন দেশ তাদের নিজ নিজ ‘রামাদান নাইটসের অনুষ্ঠান’ পরিবেশন করে। এরই মধ্যেই স্বাগতিক মিশর ছাড়াও সুদান, ইয়েমেন, পাকিস্তান এবং ইন্দোনেশিয়া অনুষ্ঠান পরিবেশন করেছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

কায়রো অপেরা হাউজে ‘বাংলাদেশ রামাদান নাইট’

আপডেট টাইম : 08:19:18 am, Saturday, 15 April 2023

প্রবাস ডেস্ক: মিশরের রাজধানী কায়রো মহানগরীর কেন্দ্রস্থল দিয়ে প্রবাহিত ঐতিহাসিক নীলনদ। এই নীলনদের তীরে অবস্থিত বিখ্যাত (দার এল-অপেরা-ইল-মাসরিয়া) কায়রো অপেরা হাউজ। এখানেই রাতে বেজে ওঠে বাঙালির চিরপরিচিত বাংলা গানের মধুর সুর, বাংলা কবিতার ছন্দের মোহিনি এবং হাস্যরসের কৌতুক। অপেরা হাউজের কানায় কানায় ভরে যায় মিশরপ্রবাসী বাংলাদেশি এবং মিশরীয় দর্শক শ্রোতায়।

‘বাংলাদেশ রামাদান নাইটস’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রতিটি মুহূর্ত হয়ে উঠে আনন্দ বিনোদনের স্মরণীয় ঘটনা। শিশির সরকারের সঞ্চালনায় পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত এবং মিশরে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মো. মনিরুল ইসলামের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হয় রাতের জমকালো আয়োজন।

বিশ্বখ্যাত আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশি ছাত্রের একটি দল বাংলা ও আরবি ভাষায় সঙ্গীত পরিবেশন করে।

কায়রোস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দূতাবাসের প্রবাসী বাংলাদেশি শিল্পীরা দূতাবাস এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিয়ে গঠিত দলের পরিবেশিত সঙ্গীত সবাইকে বিমুগ্ধ করে। প্রতিটি গান শেষ হওয়ার সাথে সাথে সবাই করতালিতে ফেটে পড়ে। মিশরের জনপ্রিয় কায়রো অপেরা হাউজে এ ধরনের একটি উপভোগ্য বৈচিত্র্যময় অনুষ্ঠান মধ্যরাত অবধি বসে বসে দেখতে পেরে সবাই উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি আশা প্রকাশ করি ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে এ জাতীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারব। যেখানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ বাঙালির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে স্বচক্ষে দেখতে পাবে।

রাষ্ট্রদূত অনুষ্ঠান শেষে কায়রো অপেরা হাউজের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কৃতজ্ঞতা জানান। বাংলাদেশ ছাড়াও বিভিন্ন দেশ তাদের নিজ নিজ ‘রামাদান নাইটসের অনুষ্ঠান’ পরিবেশন করে। এরই মধ্যেই স্বাগতিক মিশর ছাড়াও সুদান, ইয়েমেন, পাকিস্তান এবং ইন্দোনেশিয়া অনুষ্ঠান পরিবেশন করেছে।