Dhaka , Wednesday, 24 April 2024

সুদানে সংঘাতে নিহত ২০০

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:15:47 am, Wednesday, 19 April 2023
  • 29 বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সুদানে সেনাবাহিনী এবং আধাসামরিক বাহিনীর মধ্যে লড়াইয়ে প্রায় ২০০ জন নিহত এবং এক হাজার ৮০০ জন আহত হয়েছে। দেশটির বিভিন্ন শহরে তিন দিন যুদ্ধের পরে হাসপাতালগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং ত্রাণ পাঠানো ব্যাহত হয়েছে।

২০২১ সালের একটি অভ্যুত্থানে ক্ষমতা দখলকারী দুই জেনারেলের বাহিনীর মধ্যে শনিবার মারাত্মক সহিংসতা শুরু হয়। সুদানের সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান এবং তার ডেপুটি ও আধাসামরিক বাহিনী র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সেস (আরএসএফ) মোহাম্মদ হামদান দাগলোর বাহিনীর মধ্যে এ সংঘর্ষ শুরু হয়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, রাজধানীতে যুদ্ধ নজিরবিহীন এবং দীর্ঘায়িত হতে পারে। আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিক যুদ্ধবিরতির আহ্বানের পাশপাশি কূটনীতিকরা একত্রিত হচ্ছেস।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন জানিয়েছেন, তিনি দুই জেনারেলের সাথে কথা বলেছেন এবং ‘জরুরিভিত্তিতে যুদ্ধবিরতির প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়েছেন।’

রাজধানীর আতঙ্কিত বাসিন্দারা রমজানের শেষ এবং পবিত্রতম দিনগুলোতে তাদের জানালা দিয়ে রাস্তায় একের পর এক ট্যাঙ্ক যেতে দেখেছেন। গোলা আঘাতে বিভিন্ন ভবন কাঁপছে এবং আগুনের ধোঁয়া বাতাসে উড়তে দেখা গেছে। সংঘর্ষে বিমান হামলা, আর্টিলারি এবং ভারী গোলাগুলির ব্যবহার হয়েছে।

সুদানে জাতিসংঘের মিশনের প্রধান ভলকার পার্থেস নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার অধিবেশ জানিয়েছেন, তিন দিনের সংঘাতে কমপক্ষে ১৮৫ জন নিহত এবং আরও এক হাজার ৮০০ জন আহত হয়েছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

সুদানে সংঘাতে নিহত ২০০

আপডেট টাইম : 08:15:47 am, Wednesday, 19 April 2023

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সুদানে সেনাবাহিনী এবং আধাসামরিক বাহিনীর মধ্যে লড়াইয়ে প্রায় ২০০ জন নিহত এবং এক হাজার ৮০০ জন আহত হয়েছে। দেশটির বিভিন্ন শহরে তিন দিন যুদ্ধের পরে হাসপাতালগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং ত্রাণ পাঠানো ব্যাহত হয়েছে।

২০২১ সালের একটি অভ্যুত্থানে ক্ষমতা দখলকারী দুই জেনারেলের বাহিনীর মধ্যে শনিবার মারাত্মক সহিংসতা শুরু হয়। সুদানের সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান এবং তার ডেপুটি ও আধাসামরিক বাহিনী র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সেস (আরএসএফ) মোহাম্মদ হামদান দাগলোর বাহিনীর মধ্যে এ সংঘর্ষ শুরু হয়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, রাজধানীতে যুদ্ধ নজিরবিহীন এবং দীর্ঘায়িত হতে পারে। আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিক যুদ্ধবিরতির আহ্বানের পাশপাশি কূটনীতিকরা একত্রিত হচ্ছেস।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন জানিয়েছেন, তিনি দুই জেনারেলের সাথে কথা বলেছেন এবং ‘জরুরিভিত্তিতে যুদ্ধবিরতির প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়েছেন।’

রাজধানীর আতঙ্কিত বাসিন্দারা রমজানের শেষ এবং পবিত্রতম দিনগুলোতে তাদের জানালা দিয়ে রাস্তায় একের পর এক ট্যাঙ্ক যেতে দেখেছেন। গোলা আঘাতে বিভিন্ন ভবন কাঁপছে এবং আগুনের ধোঁয়া বাতাসে উড়তে দেখা গেছে। সংঘর্ষে বিমান হামলা, আর্টিলারি এবং ভারী গোলাগুলির ব্যবহার হয়েছে।

সুদানে জাতিসংঘের মিশনের প্রধান ভলকার পার্থেস নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার অধিবেশ জানিয়েছেন, তিন দিনের সংঘাতে কমপক্ষে ১৮৫ জন নিহত এবং আরও এক হাজার ৮০০ জন আহত হয়েছে।