Dhaka , Thursday, 25 April 2024

১৮ বছর ধরে নিখোঁজ প্রবাসীর সন্ধানে পরিবার

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:00:36 am, Tuesday, 9 May 2023
  • 33 বার

প্রবাস ডেস্ক: কাজের সন্ধানে ২০০৫ সালে কুয়েতে পাড়ি জমান লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার নন্দপুর গ্রামের ইমাম হোসেন। কুয়েত যাওয়ার পর তিন মাস পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। পরে হুট করেই একদিন নিখোঁজ হয়ে যান। এরপর দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে কোনো সন্ধান নেই। বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো তথ্য বের করতে পারেনি পরিবার। দীর্ঘ দেড় যুগ ধরে ইমাম হোসেনের অপেক্ষায় দিন কাটাচ্ছেন বৃদ্ধা মা, স্ত্রী ও একমাত্র সন্তান নুসরাত নিপা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ইমাম হোসেন মৃত ইউসুফ আলী মোল্লার ছেলে। প্রায় ১৮ বছর আগে শ্রমিক হিসেবে কুয়েতে পাড়ি জমান তিনি। কুয়েতে উট পালন করতেন। কুয়েতে আসার পর তিন মাস বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। এরমধ্যে একবার বেতন পেয়ে বাড়িতে টাকা পাঠান। এরপর হঠাৎ করে ইমাম হোসেনের সঙ্গে পরিবারের যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়।

ইমাম হোসেনের মেয়ে নুসরাত নিপা বলেন, আমি ছোট থাকতে বাবা কুয়েত চলে যান। এরপর নিখোঁজ হলে আমার চাচার মাধ্যমে খবর নেন আমার পরিবার। চাচা তখন কুয়েত ছিলেন। কিন্তু বাবার কোনো খবর মেলেনি। সেই চাচাও এখন বেঁচে নেই। পরিবারে অন্য কেউ না থাকায় তখন কুয়েতের বাংলাদেশ দূতাবাসে এবং নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করা হয়নি। পরবর্তীতে থানায় গেলেও আমাদের এই বিষয়ে তারা কিছু (সহায়তা) করতে পারেনি।

বাবাকে একবার দেখতে চান জানিয়ে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে নুসরাত নিপা বলেন, এতগুলো বছর বাবা ছাড়া কাটিয়ে দিলাম। যেভাবে হোক আমি আমার বাবাকে ফিরে পেতে চাই। তাকে এক নজর দেখতে চাই।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

১৮ বছর ধরে নিখোঁজ প্রবাসীর সন্ধানে পরিবার

আপডেট টাইম : 08:00:36 am, Tuesday, 9 May 2023

প্রবাস ডেস্ক: কাজের সন্ধানে ২০০৫ সালে কুয়েতে পাড়ি জমান লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার নন্দপুর গ্রামের ইমাম হোসেন। কুয়েত যাওয়ার পর তিন মাস পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। পরে হুট করেই একদিন নিখোঁজ হয়ে যান। এরপর দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে কোনো সন্ধান নেই। বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো তথ্য বের করতে পারেনি পরিবার। দীর্ঘ দেড় যুগ ধরে ইমাম হোসেনের অপেক্ষায় দিন কাটাচ্ছেন বৃদ্ধা মা, স্ত্রী ও একমাত্র সন্তান নুসরাত নিপা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ইমাম হোসেন মৃত ইউসুফ আলী মোল্লার ছেলে। প্রায় ১৮ বছর আগে শ্রমিক হিসেবে কুয়েতে পাড়ি জমান তিনি। কুয়েতে উট পালন করতেন। কুয়েতে আসার পর তিন মাস বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। এরমধ্যে একবার বেতন পেয়ে বাড়িতে টাকা পাঠান। এরপর হঠাৎ করে ইমাম হোসেনের সঙ্গে পরিবারের যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়।

ইমাম হোসেনের মেয়ে নুসরাত নিপা বলেন, আমি ছোট থাকতে বাবা কুয়েত চলে যান। এরপর নিখোঁজ হলে আমার চাচার মাধ্যমে খবর নেন আমার পরিবার। চাচা তখন কুয়েত ছিলেন। কিন্তু বাবার কোনো খবর মেলেনি। সেই চাচাও এখন বেঁচে নেই। পরিবারে অন্য কেউ না থাকায় তখন কুয়েতের বাংলাদেশ দূতাবাসে এবং নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করা হয়নি। পরবর্তীতে থানায় গেলেও আমাদের এই বিষয়ে তারা কিছু (সহায়তা) করতে পারেনি।

বাবাকে একবার দেখতে চান জানিয়ে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে নুসরাত নিপা বলেন, এতগুলো বছর বাবা ছাড়া কাটিয়ে দিলাম। যেভাবে হোক আমি আমার বাবাকে ফিরে পেতে চাই। তাকে এক নজর দেখতে চাই।