Dhaka , Monday, 15 July 2024

১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:14:35 am, Tuesday, 9 May 2023
  • 62 বার

নিউজ ডেস্ক: দেশে ভোজ্যতেলের চাহিদা মেটাতে আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। দুই লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন তেল সরবরাহ করবে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেড। এতে মোট খরচ হবে ১৪৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

জানা গেছে, ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ২০২২-২৩ অর্থবছরে বার্ষিক ক্রয় পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল ক্রয়ের প্রস্তাব গত ২৩ এপ্রিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। এর আগে, ২০১১ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় রাষ্ট্রীয় জরুরি প্রয়োজনে অনুমোদনের তারিখ থেকে ২০২৪ সালের ২৫ মে পর্যন্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজ, রসুন, মশুর ডাল, ছোলা, মশলা-শুকনা মরিচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, এলাচ, ধনে, জিরা, আদা, হলুদ, তেজপাতা, সয়াবিন তেল, পাম ওয়েল, খাবার লবণ, আলু, খেঁজুর ইত্যাদি আমদানি/স্থানীয় বাজার থেকে সংগ্রহের লক্ষে পিপিএ,২০০৬ এর ৬৮(১) ধারা অনুযায়ী সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়।

সূত্র জানায়, টিসিবি কর্তৃক এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আন্তর্জাতিকভাবে ক্রয়ের জন্য পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা,২০০৮ অনুসরণ করে গত ১৬ এপ্রিল তারিখে সয়াবিন তেল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেড, মহারাষ্ট্র, ভারত (স্থানীয় এজেন্ট: এইচএইচ এন্টারপ্রাইজ, ঢাকা) এর কাছ থেকে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য দরপ্রস্তাব আহ্বান করা হয়। সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে আগামী ৩০ জুনের মধ্যে সম্পূর্ণ সয়াবিন তেল জাহাজীকরণ সম্পন্ন করার শর্ত দেওয়া হয়। প্রতিষ্ঠানটি সে শর্ত মেনে দরপ্রস্তাবে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.৩৭ ডলার উল্লেখ করে। পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা,২০০৮ এর বিধি-১৬ (৫ক) অনুযায়ী দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দর প্রণয়ন করে ১.২৯ ডলার। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত (নেগোশিয়েটেড) মূল্য প্রতি লিটার ১.২৬ ডলার।

দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক প্রাপ্ত দরপ্রস্তাব, তুলনামূলক বিবরণী, সংযুক্ত দাখিলকৃত কাগজ পরীক্ষা শেষে দরপ্রস্তাবটি রেসপনসিভ বিবেচিত হয়। মূল্যায়ন কমিটি প্রস্তাবটি দর পর্যালোচনা শেষ প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.২৬ ডলার যথাযথ বিবেচনা করে নেগোশিয়েশন করে। নেগোশিয়েটেড দরে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য সম্মতি চাওয়া হলে প্রতিষ্ঠানটি ১.২৬ ডলার দরে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল সরবরাহের লিখিত সম্মতি দেয়।

দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেডের কাছ থেকে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল ২ লিটার পেট বোতলে ১.২৬ ডলার মূল্যে (১ ডলার=১০৭.০০ টাকা) ক্রয়ের সুপারিশ করে।

সূত্র আরও জানায়, দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত প্রতিলিটার সয়াবিন তেলের দর ও দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দরের প্রতিলিটারের পার্থক্য প্রতিলিটারে ০.০৩ ডলার কম। নির্ধারিত দরে টিসিবি’র গুদাম পর্যন্ত খরচ (ভ্যাট, এআইটি, পিএসআই ফি, মেরিন ইন্স্যুরেন্স, পোর্ট চার্জ, শিপিং এজেন্ট চার্জ,স্টিভডোরিং চার্জ, সি অ্যান্ড এফ এজেন্ট কমিশন,ক্যারিং চার্জ ইত্যাদিসহ) প্রায় ১৪৬.১০ টাকা প্রতি লিটার। যা বর্তমানে স্থানীয় বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

উল্লেখ্য, বর্তমানে স্থানীয় বাজারে সয়াবিন তেলের প্রতিলিটারের গড়মূল্য ১৮২.৫০ টাকা। নির্ধারিত দর বর্তমান স্থানীয় বাজারমূল্য থেকে ৩৬.৪০ টাকা কম। এর আগে, গত ২৭ মার্চ তারিখে উন্মুক্ত দরপত্রের (জাতীয়) মাধ্যমে ২ লিটার পেট বোতলে প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১৭৩.৯৫ টাকা দরে দরপ্রস্তাব পাওয়া গেছে; যা থেকে মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত দর ২৭.৮৫ টাকা কম।

সূত্র জানায়, দরপ্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটির নির্ধারিত প্রতি লিটারের দাম ১৪৬.১০ টাকা হিসেবে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আমদানিতে মোট ব্যয় হবে ১ কোটি ৩৮ লাখ ৬০ লাখ ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৪৮ কোটি ৩০ লাখ ২০ হাজার টাকা।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

১ কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার

আপডেট টাইম : 08:14:35 am, Tuesday, 9 May 2023

নিউজ ডেস্ক: দেশে ভোজ্যতেলের চাহিদা মেটাতে আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। দুই লিটারের পেট বোতলে এই সয়াবিন তেল সরবরাহ করবে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেড। এতে মোট খরচ হবে ১৪৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

জানা গেছে, ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ২০২২-২৩ অর্থবছরে বার্ষিক ক্রয় পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল ক্রয়ের প্রস্তাব গত ২৩ এপ্রিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। এর আগে, ২০১১ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় রাষ্ট্রীয় জরুরি প্রয়োজনে অনুমোদনের তারিখ থেকে ২০২৪ সালের ২৫ মে পর্যন্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজ, রসুন, মশুর ডাল, ছোলা, মশলা-শুকনা মরিচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, এলাচ, ধনে, জিরা, আদা, হলুদ, তেজপাতা, সয়াবিন তেল, পাম ওয়েল, খাবার লবণ, আলু, খেঁজুর ইত্যাদি আমদানি/স্থানীয় বাজার থেকে সংগ্রহের লক্ষে পিপিএ,২০০৬ এর ৬৮(১) ধারা অনুযায়ী সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়।

সূত্র জানায়, টিসিবি কর্তৃক এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আন্তর্জাতিকভাবে ক্রয়ের জন্য পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা,২০০৮ অনুসরণ করে গত ১৬ এপ্রিল তারিখে সয়াবিন তেল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেড, মহারাষ্ট্র, ভারত (স্থানীয় এজেন্ট: এইচএইচ এন্টারপ্রাইজ, ঢাকা) এর কাছ থেকে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য দরপ্রস্তাব আহ্বান করা হয়। সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে আগামী ৩০ জুনের মধ্যে সম্পূর্ণ সয়াবিন তেল জাহাজীকরণ সম্পন্ন করার শর্ত দেওয়া হয়। প্রতিষ্ঠানটি সে শর্ত মেনে দরপ্রস্তাবে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.৩৭ ডলার উল্লেখ করে। পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা,২০০৮ এর বিধি-১৬ (৫ক) অনুযায়ী দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দর প্রণয়ন করে ১.২৯ ডলার। দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত (নেগোশিয়েটেড) মূল্য প্রতি লিটার ১.২৬ ডলার।

দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক প্রাপ্ত দরপ্রস্তাব, তুলনামূলক বিবরণী, সংযুক্ত দাখিলকৃত কাগজ পরীক্ষা শেষে দরপ্রস্তাবটি রেসপনসিভ বিবেচিত হয়। মূল্যায়ন কমিটি প্রস্তাবটি দর পর্যালোচনা শেষ প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১.২৬ ডলার যথাযথ বিবেচনা করে নেগোশিয়েশন করে। নেগোশিয়েটেড দরে সয়াবিন তেল সরবরাহের জন্য সম্মতি চাওয়া হলে প্রতিষ্ঠানটি ১.২৬ ডলার দরে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল সরবরাহের লিখিত সম্মতি দেয়।

দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান গুভেন ট্রেডার্স প্রাইভেট লিমিটেডের কাছ থেকে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল ২ লিটার পেট বোতলে ১.২৬ ডলার মূল্যে (১ ডলার=১০৭.০০ টাকা) ক্রয়ের সুপারিশ করে।

সূত্র আরও জানায়, দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত প্রতিলিটার সয়াবিন তেলের দর ও দাপ্তরিক প্রাক্কলিত দরের প্রতিলিটারের পার্থক্য প্রতিলিটারে ০.০৩ ডলার কম। নির্ধারিত দরে টিসিবি’র গুদাম পর্যন্ত খরচ (ভ্যাট, এআইটি, পিএসআই ফি, মেরিন ইন্স্যুরেন্স, পোর্ট চার্জ, শিপিং এজেন্ট চার্জ,স্টিভডোরিং চার্জ, সি অ্যান্ড এফ এজেন্ট কমিশন,ক্যারিং চার্জ ইত্যাদিসহ) প্রায় ১৪৬.১০ টাকা প্রতি লিটার। যা বর্তমানে স্থানীয় বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

উল্লেখ্য, বর্তমানে স্থানীয় বাজারে সয়াবিন তেলের প্রতিলিটারের গড়মূল্য ১৮২.৫০ টাকা। নির্ধারিত দর বর্তমান স্থানীয় বাজারমূল্য থেকে ৩৬.৪০ টাকা কম। এর আগে, গত ২৭ মার্চ তারিখে উন্মুক্ত দরপত্রের (জাতীয়) মাধ্যমে ২ লিটার পেট বোতলে প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১৭৩.৯৫ টাকা দরে দরপ্রস্তাব পাওয়া গেছে; যা থেকে মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত দর ২৭.৮৫ টাকা কম।

সূত্র জানায়, দরপ্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটির নির্ধারিত প্রতি লিটারের দাম ১৪৬.১০ টাকা হিসেবে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল আমদানিতে মোট ব্যয় হবে ১ কোটি ৩৮ লাখ ৬০ লাখ ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৪৮ কোটি ৩০ লাখ ২০ হাজার টাকা।