Dhaka , Monday, 17 June 2024

ভারতে বাতিল হচ্ছে ২০০০ রুপির নোট

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:28:43 am, Saturday, 20 May 2023
  • 36 বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০০০ রুপির নোট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল ভারতের রিজার্ভ ব্যাংক (আরবিআই)। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয় বাজার থেকে তুলে নেওয়া হবে ২০০০ রুপির নোট। তবে ২০০০ রুপির নোট প্রত্যাহার করা হলে এখনই এই নোটকে অচল বলে ঘোষণা দেওয়া হচ্ছে না।

বর্তমানে বাজারে যে ২০০০ রুপির নোট আছে তা আপাতত বহাল থাকবে। নতুন নিয়ম অনুসারে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকবে এই ২০০০ রুপির নোট। চার মাসের এই সময় সীমার মধ্যেই গ্রাহকরা ব্যাংকে গিয়ে ২০০০ রুপির নোট জমা দিয়ে পরিবর্তে অন্য নোট সংগ্রহ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে একসাথে ব্যাংকে ২০ হাজার রুপি পর্যন্ত ২০০০ রুপির নোট ব্যাংকে জমা দেওয়া যাবে। আগামী ২৩ মে থেকে গ্রাহকরা যেকোনো ব্যাংকের শাখা থেকে এই ২০০০ রুপির নোট পরিবর্তন করতে পারবেন। রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার আশা করছে, এই চার মাস সময়সীমার মধ্যে গ্রাহকরা তাদের কাছে গচ্ছিত থাকা ২০০০ রুপির নোট পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

রিজার্ভ ব্যাংক আরও জানিয়েছে নতুন করে ২০০০ রুপির নোট আর ছাপাবে না। সেই সাথে দেশটির সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকগুলিকেও নতুন করে গ্রাহকদেরকে ২০০০ রুপি নোট ইস্যু করতে নিষেধ করা হয়েছে।
দীর্ঘদিন ধরে অবশ্য এ নিয়ে জল্পনা চলছিল। দেশটির এটিএম এবং ব্যাংকগুলিতেও ২০০০ রুপির নোট পাওয়া যাচ্ছিল না। এবার সরকারিভাবে এই নোট প্রত্যাহার করা হলো। এ বিষয়ে সম্প্রতির সংসদেও তথ্য দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

রিজার্ভ ব্যাংকের বার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে ২০০০ রুপির নোট ছাপানো বন্ধ করে দেয় আরবিআই। বাজারে যত সংখ্যক ২০০০ রুপির নোট রয়েছে, ২০১৭ সালের মার্চ মাসের আগে এর প্রায় ৮৯ শতাংশ ছাড়া হয়েছিল। বাজারে যে পরিমাণ ২০০০ রুপির নোট লেনদেন হচ্ছিল তার পরিমাণ ক্রমশ কমেছে। ২০১৮ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাজারে যে ২০০০ রুপির নোটের প্রচলন ছিল, তার মোট মূল্য ছিল ৬.৭৩ লাখ কোটি রুপি। ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাজারে চালু থাকা ২০০০ রুপির নোটের মূল্য এসে কমে দাঁড়ায় ৩.৬২ লাখ কোটি রুপি। এর ফলে বাজারে ২০০০ রুপির নোটের প্রচলন কমে গেছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে এক ভাষণে পুরানো ৫০০ রুপি এবং ১০০০ রুপির নোট বাতিল করে কেন্দ্রের মোদি সরকার। তার বদলে নতুন ৫০০ রুপির নোট এবং ২০০০ রুপির নোট চালু করা হয়েছিল। তবে ১০০০ রুপির নোট আর ফিরিয়ে আনা হয়নি। সে ক্ষেত্রে ভারতে ২০০০ রুপির নোটই ছিল সবথেকে বেশি মূল্যের নোট।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

ভারতে বাতিল হচ্ছে ২০০০ রুপির নোট

আপডেট টাইম : 08:28:43 am, Saturday, 20 May 2023

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০০০ রুপির নোট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল ভারতের রিজার্ভ ব্যাংক (আরবিআই)। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয় বাজার থেকে তুলে নেওয়া হবে ২০০০ রুপির নোট। তবে ২০০০ রুপির নোট প্রত্যাহার করা হলে এখনই এই নোটকে অচল বলে ঘোষণা দেওয়া হচ্ছে না।

বর্তমানে বাজারে যে ২০০০ রুপির নোট আছে তা আপাতত বহাল থাকবে। নতুন নিয়ম অনুসারে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকবে এই ২০০০ রুপির নোট। চার মাসের এই সময় সীমার মধ্যেই গ্রাহকরা ব্যাংকে গিয়ে ২০০০ রুপির নোট জমা দিয়ে পরিবর্তে অন্য নোট সংগ্রহ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে একসাথে ব্যাংকে ২০ হাজার রুপি পর্যন্ত ২০০০ রুপির নোট ব্যাংকে জমা দেওয়া যাবে। আগামী ২৩ মে থেকে গ্রাহকরা যেকোনো ব্যাংকের শাখা থেকে এই ২০০০ রুপির নোট পরিবর্তন করতে পারবেন। রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার আশা করছে, এই চার মাস সময়সীমার মধ্যে গ্রাহকরা তাদের কাছে গচ্ছিত থাকা ২০০০ রুপির নোট পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

রিজার্ভ ব্যাংক আরও জানিয়েছে নতুন করে ২০০০ রুপির নোট আর ছাপাবে না। সেই সাথে দেশটির সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকগুলিকেও নতুন করে গ্রাহকদেরকে ২০০০ রুপি নোট ইস্যু করতে নিষেধ করা হয়েছে।
দীর্ঘদিন ধরে অবশ্য এ নিয়ে জল্পনা চলছিল। দেশটির এটিএম এবং ব্যাংকগুলিতেও ২০০০ রুপির নোট পাওয়া যাচ্ছিল না। এবার সরকারিভাবে এই নোট প্রত্যাহার করা হলো। এ বিষয়ে সম্প্রতির সংসদেও তথ্য দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

রিজার্ভ ব্যাংকের বার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে ২০০০ রুপির নোট ছাপানো বন্ধ করে দেয় আরবিআই। বাজারে যত সংখ্যক ২০০০ রুপির নোট রয়েছে, ২০১৭ সালের মার্চ মাসের আগে এর প্রায় ৮৯ শতাংশ ছাড়া হয়েছিল। বাজারে যে পরিমাণ ২০০০ রুপির নোট লেনদেন হচ্ছিল তার পরিমাণ ক্রমশ কমেছে। ২০১৮ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাজারে যে ২০০০ রুপির নোটের প্রচলন ছিল, তার মোট মূল্য ছিল ৬.৭৩ লাখ কোটি রুপি। ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাজারে চালু থাকা ২০০০ রুপির নোটের মূল্য এসে কমে দাঁড়ায় ৩.৬২ লাখ কোটি রুপি। এর ফলে বাজারে ২০০০ রুপির নোটের প্রচলন কমে গেছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে এক ভাষণে পুরানো ৫০০ রুপি এবং ১০০০ রুপির নোট বাতিল করে কেন্দ্রের মোদি সরকার। তার বদলে নতুন ৫০০ রুপির নোট এবং ২০০০ রুপির নোট চালু করা হয়েছিল। তবে ১০০০ রুপির নোট আর ফিরিয়ে আনা হয়নি। সে ক্ষেত্রে ভারতে ২০০০ রুপির নোটই ছিল সবথেকে বেশি মূল্যের নোট।