Dhaka , Monday, 15 July 2024

ইতালিতে ই-পাসপোর্টের দাবি প্রবাসীদের

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 10:36:12 am, Saturday, 27 May 2023
  • 51 বার

প্রবাস ডেস্ক: ইতালিতে ই-পাসপোর্ট চালু করতে দাবি জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে তারা এ দাবি জানিয়ে আসছেন।

বিষয়টি ইতোমধ্যে অবগত হয়েছে দূতাবাসও। যেহেতু এমআরপি দিয়েই ডকুমেন্টারি সব কাজ হচ্ছে, সেহেতু খুব শিগগির এটি চালুর সম্ভাবনা দেখছে না দূতাবাস।

যদিও ই-পাসপোর্ট চালু করা নিয়ে প্রতিদিনই প্রবাসী বাংলাদেশিরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দাবি জানাচ্ছে রোম বাংলাদেশ দূতাবাসের কাছে।

এ বিষয়ে আখন শিপন নামে এক বাংলাদেশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছেন— ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম শুরু করুন। নতুবা আমরা আবারও আন্দোলনের কর্মসূচি হাতে নেব।

এমডি সিয়াম খান নামে এক বাংলাদেশি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষ্যে ই-পাসপোর্ট চালু করেন।

এ প্রসঙ্গে, এক প্রশ্নের জবাবে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শামীম আহসান বলেন, দূতাবাসে বর্তমানে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) সেবা নিয়মিত প্রদান করা হচ্ছে। যেসব প্রবাসী বাংলাদেশির এমআরপি রয়েছে তারা এটি সহজেই রি-ইস্যু করতে পারছেন। এমনকি ইতালিতে জন্মগ্রহণকারী বাংলাদেশি শিশুদের ক্ষেত্রেও নতুন এমআরপি প্রদান করা হয়।

তিনি বলেন, একটি এমআরপি মেয়াদ থাকে পাঁচ বছর। ফলে যারা বর্তমানে এমআরপি পাচ্ছেন, তারা এ পাঁচ বছর নিশ্চিন্তে এ পাসপোর্ট ব্যবহার করতে পারবেন। তাই এখনই এটিকে ই-পাসপোর্টে কনভার্সনের কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের সব পাসপোর্ট অফিসে ই-পাসপোর্ট চালু হয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে নতুন পাসপোর্ট করে যারা ইতালিতে এসেছেন অথবা যেসব প্রবাসী বাংলাদেশি বেড়াতে গিয়ে সেখানে আগের পাসপোর্ট রি-ইস্যু করে ইতালিতে এসেছেন তারা প্রায় সবাই ই-পাসপোর্ট পেয়েছেন।

ই-পাসপোর্টের মেয়াদ ৫-১০ বছর। ফলে আগামী ৫-১০ বছর তাদের দূতাবাসে এসে পাসপোর্ট রি-ইস্যুর প্রয়োজন পড়বে না।

ইতালিতে ই-পাসপোর্টের চাহিদা রয়েছে কেবল তাদের যারা ই-পাসপোর্ট নিয়ে ইতালিতে এসেছেন। কিন্তু যাদের ই-পাসপোর্ট হারিয়ে ফেলেছেন তাদের জন্য আপাদত সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, বিদেশের মিশনগুলোতে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম ধাপে ধাপে চালু করা হচ্ছে। ইউরোপের কয়েকটি দেশ যেমন- জার্মানি, গ্রিস ও অস্ট্রিয়াতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চলছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

ইতালিতে ই-পাসপোর্টের দাবি প্রবাসীদের

আপডেট টাইম : 10:36:12 am, Saturday, 27 May 2023

প্রবাস ডেস্ক: ইতালিতে ই-পাসপোর্ট চালু করতে দাবি জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে তারা এ দাবি জানিয়ে আসছেন।

বিষয়টি ইতোমধ্যে অবগত হয়েছে দূতাবাসও। যেহেতু এমআরপি দিয়েই ডকুমেন্টারি সব কাজ হচ্ছে, সেহেতু খুব শিগগির এটি চালুর সম্ভাবনা দেখছে না দূতাবাস।

যদিও ই-পাসপোর্ট চালু করা নিয়ে প্রতিদিনই প্রবাসী বাংলাদেশিরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দাবি জানাচ্ছে রোম বাংলাদেশ দূতাবাসের কাছে।

এ বিষয়ে আখন শিপন নামে এক বাংলাদেশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছেন— ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম শুরু করুন। নতুবা আমরা আবারও আন্দোলনের কর্মসূচি হাতে নেব।

এমডি সিয়াম খান নামে এক বাংলাদেশি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষ্যে ই-পাসপোর্ট চালু করেন।

এ প্রসঙ্গে, এক প্রশ্নের জবাবে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শামীম আহসান বলেন, দূতাবাসে বর্তমানে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) সেবা নিয়মিত প্রদান করা হচ্ছে। যেসব প্রবাসী বাংলাদেশির এমআরপি রয়েছে তারা এটি সহজেই রি-ইস্যু করতে পারছেন। এমনকি ইতালিতে জন্মগ্রহণকারী বাংলাদেশি শিশুদের ক্ষেত্রেও নতুন এমআরপি প্রদান করা হয়।

তিনি বলেন, একটি এমআরপি মেয়াদ থাকে পাঁচ বছর। ফলে যারা বর্তমানে এমআরপি পাচ্ছেন, তারা এ পাঁচ বছর নিশ্চিন্তে এ পাসপোর্ট ব্যবহার করতে পারবেন। তাই এখনই এটিকে ই-পাসপোর্টে কনভার্সনের কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের সব পাসপোর্ট অফিসে ই-পাসপোর্ট চালু হয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে নতুন পাসপোর্ট করে যারা ইতালিতে এসেছেন অথবা যেসব প্রবাসী বাংলাদেশি বেড়াতে গিয়ে সেখানে আগের পাসপোর্ট রি-ইস্যু করে ইতালিতে এসেছেন তারা প্রায় সবাই ই-পাসপোর্ট পেয়েছেন।

ই-পাসপোর্টের মেয়াদ ৫-১০ বছর। ফলে আগামী ৫-১০ বছর তাদের দূতাবাসে এসে পাসপোর্ট রি-ইস্যুর প্রয়োজন পড়বে না।

ইতালিতে ই-পাসপোর্টের চাহিদা রয়েছে কেবল তাদের যারা ই-পাসপোর্ট নিয়ে ইতালিতে এসেছেন। কিন্তু যাদের ই-পাসপোর্ট হারিয়ে ফেলেছেন তাদের জন্য আপাদত সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, বিদেশের মিশনগুলোতে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম ধাপে ধাপে চালু করা হচ্ছে। ইউরোপের কয়েকটি দেশ যেমন- জার্মানি, গ্রিস ও অস্ট্রিয়াতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চলছে।