Dhaka , Tuesday, 28 May 2024

জিম করার সময় যে ভুলে হতে পারে বিপদ

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:35:48 am, Monday, 29 May 2023
  • 42 বার

লাইফস্টাইল ডেস্ক: বর্তমানে জিম সংস্কৃতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। বিশেষ করে তরুণরা এখন শরীরচর্চার প্রতি বেশি মনোযোগী। যদিও শরীরচর্চা করার অভ্যাস স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

তবে অতিরিক্ত শরীরচর্চা বা ওজন কমাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা জিমে পড়ে থাকার অভ্যাস কিন্তু আবার বিপদের কারণ হতে পারে।

অনেকেই শরীরের পরিস্থিতি না বুঝেই প্রতোযোগিতা করে জিমে গিয়ে ব্যায়াম করেন। এর থেকে কিন্তু হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকও হতে পারে।

শরীরের অবস্থা না বুঝে ভারোত্তোলন কিংবা জিমে অতিরিক্ত শরীরচর্চা করতে গিয়ে জিমে হার্ট অ্যাটাকের ঘটনা কিন্তু অনেকের সঙ্গেই ঘটেছে। তাই সতর্ক থাকা জরুরি।

কিছু বিষয় আছে যা জিম করার সময় করবেন না। চলুন জেনে নেওয়া যাক জিমে শরীরচর্চা করার ক্ষেত্রে করণীয় ও বর্জণীয় সম্পর্কে-

প্রতিযোগিতা করবেন না

জিম হলো শরীর ও মনের জন্য ব্যায়াম করার জায়গা, এটি কোনো প্রতিযোগিতার স্থান নয়। একজন বেশি ভারোত্তোলন করছেন, তাকে দেখে আপনিও হয়তো তা করতে চাইবেন!

তবে মনে রাখতে হবে সবার শরীরের অবস্থা এক নয়। তিনি পারলে যে আপনিও পারবেন বিষয়টি ভুল। তাই কারও সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে যাবেন না।

শরীরের কথা না বোঝা

বন্ধু যে ব্যায়াম করছে আপনিও যদি সেই ব্যায়াম করেন তাহলে বিপদে পড়তে পারেন। এমনও হতে পারে যে আপনি জিমে নতুন অন্যদিকে আপনার বন্ধু আগে থেকেই শরীরচর্চা করছেন, এক্ষেত্রে ভুল করেও তার মতো অনুশীলন করবেন না। প্রয়োজনে প্রশিক্ষককে বলুন আপনার অনুশীলনের তালিকা তৈরি করে দিতে।

কখন থামতে হবে তা না জানা

শরীরের সঙ্গে জোর করে কখনো শরীরচর্চা করবেন না। যখনেআর অ্যানার্জি পাবেন না তখন থামুন। নিজেকে লক্ষ্যের দিকে ঠেলে দেবেন না। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন ও পরবর্তী সময়ে আবারও শুরু করুন। অস্বস্তিবোধ করলে প্রশিক্ষকের সঙ্গে কথা বলুন।

হাইড্রেট না থাকা

হাইড্রেশন জিমের নিয়মের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। পানি খেতে ভুলবেন না। ব্যায়ামের সময় আপনার শরীর প্রচুর পানি হারায়। তাই এ সময় বেশি পরিমাণে পানি পান করুন।

উচ্চস্বরে গান শোনা

আপনি যদি ওয়ার্ক আউট করার সময় গান শুনতে পছন্দ করেন তাহলে তা যেন উচ্চস্বরে না হয়। প্রয়োজনে হেডফোন ব্যবহার করুন। জিমে গিয়ে কখনো উচ্চস্বরে গান না শোনাই ভালো।

সঠিক পোশাক না পরা

জিমের পোশাক এখন বিভিন্ন মার্কেটসহ অনলাইনেও পাওয়া যায়। তাই নির্দিষ্ট পোশাক পরে তবেই শরীরচর্চা করুন।

জিম শেষে পরিষ্কার না হওয়া

জিম শেষে অনেকেই আছেন গোসল করেন না কিংবা ঘর্মাক্ত পোশাকও ত্যাগ করেন না। এক্ষেত্রে ত্বকে ফুসকুড়িসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

প্রতিটি সেশনের আগে ওয়ার্ম আপ না করা

অনেকেই আছে শরীরকে প্রস্তুত না করেই ওয়ার্কআউট শুরু করে। প্রতিটি ওয়ার্কআউটের আগে ওয়ার্ম আপ করা খুবই জরুরি। ডাক্তাররা সরাসরি ওয়ার্কআউট করতে সতর্ক করেছেন। এটি কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যের ঝুঁকি বাড়ায়।

ঠিকমতো বিশ্রাম না নেওয়া

আপনি যখন পরপর ৫দিন নিয়মিত শরীরচর্চা করেন, তাহলে অন্তত এক বা দুদিন শরীরকে বিশ্রাম দিন। এতে পেশীগুলো সুস্থ থাকবেন। এই বিষয়ে প্রশিক্ষকের পরামর্শ নিন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জিম করার সময় যে ভুলে হতে পারে বিপদ

আপডেট টাইম : 08:35:48 am, Monday, 29 May 2023

লাইফস্টাইল ডেস্ক: বর্তমানে জিম সংস্কৃতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। বিশেষ করে তরুণরা এখন শরীরচর্চার প্রতি বেশি মনোযোগী। যদিও শরীরচর্চা করার অভ্যাস স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

তবে অতিরিক্ত শরীরচর্চা বা ওজন কমাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা জিমে পড়ে থাকার অভ্যাস কিন্তু আবার বিপদের কারণ হতে পারে।

অনেকেই শরীরের পরিস্থিতি না বুঝেই প্রতোযোগিতা করে জিমে গিয়ে ব্যায়াম করেন। এর থেকে কিন্তু হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকও হতে পারে।

শরীরের অবস্থা না বুঝে ভারোত্তোলন কিংবা জিমে অতিরিক্ত শরীরচর্চা করতে গিয়ে জিমে হার্ট অ্যাটাকের ঘটনা কিন্তু অনেকের সঙ্গেই ঘটেছে। তাই সতর্ক থাকা জরুরি।

কিছু বিষয় আছে যা জিম করার সময় করবেন না। চলুন জেনে নেওয়া যাক জিমে শরীরচর্চা করার ক্ষেত্রে করণীয় ও বর্জণীয় সম্পর্কে-

প্রতিযোগিতা করবেন না

জিম হলো শরীর ও মনের জন্য ব্যায়াম করার জায়গা, এটি কোনো প্রতিযোগিতার স্থান নয়। একজন বেশি ভারোত্তোলন করছেন, তাকে দেখে আপনিও হয়তো তা করতে চাইবেন!

তবে মনে রাখতে হবে সবার শরীরের অবস্থা এক নয়। তিনি পারলে যে আপনিও পারবেন বিষয়টি ভুল। তাই কারও সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে যাবেন না।

শরীরের কথা না বোঝা

বন্ধু যে ব্যায়াম করছে আপনিও যদি সেই ব্যায়াম করেন তাহলে বিপদে পড়তে পারেন। এমনও হতে পারে যে আপনি জিমে নতুন অন্যদিকে আপনার বন্ধু আগে থেকেই শরীরচর্চা করছেন, এক্ষেত্রে ভুল করেও তার মতো অনুশীলন করবেন না। প্রয়োজনে প্রশিক্ষককে বলুন আপনার অনুশীলনের তালিকা তৈরি করে দিতে।

কখন থামতে হবে তা না জানা

শরীরের সঙ্গে জোর করে কখনো শরীরচর্চা করবেন না। যখনেআর অ্যানার্জি পাবেন না তখন থামুন। নিজেকে লক্ষ্যের দিকে ঠেলে দেবেন না। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন ও পরবর্তী সময়ে আবারও শুরু করুন। অস্বস্তিবোধ করলে প্রশিক্ষকের সঙ্গে কথা বলুন।

হাইড্রেট না থাকা

হাইড্রেশন জিমের নিয়মের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। পানি খেতে ভুলবেন না। ব্যায়ামের সময় আপনার শরীর প্রচুর পানি হারায়। তাই এ সময় বেশি পরিমাণে পানি পান করুন।

উচ্চস্বরে গান শোনা

আপনি যদি ওয়ার্ক আউট করার সময় গান শুনতে পছন্দ করেন তাহলে তা যেন উচ্চস্বরে না হয়। প্রয়োজনে হেডফোন ব্যবহার করুন। জিমে গিয়ে কখনো উচ্চস্বরে গান না শোনাই ভালো।

সঠিক পোশাক না পরা

জিমের পোশাক এখন বিভিন্ন মার্কেটসহ অনলাইনেও পাওয়া যায়। তাই নির্দিষ্ট পোশাক পরে তবেই শরীরচর্চা করুন।

জিম শেষে পরিষ্কার না হওয়া

জিম শেষে অনেকেই আছেন গোসল করেন না কিংবা ঘর্মাক্ত পোশাকও ত্যাগ করেন না। এক্ষেত্রে ত্বকে ফুসকুড়িসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

প্রতিটি সেশনের আগে ওয়ার্ম আপ না করা

অনেকেই আছে শরীরকে প্রস্তুত না করেই ওয়ার্কআউট শুরু করে। প্রতিটি ওয়ার্কআউটের আগে ওয়ার্ম আপ করা খুবই জরুরি। ডাক্তাররা সরাসরি ওয়ার্কআউট করতে সতর্ক করেছেন। এটি কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যের ঝুঁকি বাড়ায়।

ঠিকমতো বিশ্রাম না নেওয়া

আপনি যখন পরপর ৫দিন নিয়মিত শরীরচর্চা করেন, তাহলে অন্তত এক বা দুদিন শরীরকে বিশ্রাম দিন। এতে পেশীগুলো সুস্থ থাকবেন। এই বিষয়ে প্রশিক্ষকের পরামর্শ নিন।