Dhaka , Monday, 17 June 2024

যুক্তরাজ্যের কার্ডিফের লর্ড মেয়রের দায়িত্ব নিলেন মৌলভীবাজারের মেয়ে

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:09:54 am, Thursday, 1 June 2023
  • 69 বার

প্রবাস ডেস্ক: প্রবাসী ও পর্যটন অধ্যুষিত মৌলভীবাজারের মেয়ে ড. বাবলিন মল্লিক বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলের লর্ড মেয়র নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। গত ২৫ মে তিনি ১১৮তম লর্ড মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর আগে গত মার্চের শেষের দিকে তিনি লর্ড মেয়র নির্বাচিত হন।

তার এমন সাফল্য আত্মীয়স্বজনসহ জেলাবাসী উৎফুল্ল। যুক্তরাজ্যে বসবাসরত মৌলভীবাজার জেলার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত দুই ডজনেরও বেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর ধারাবাহিক সাফল্যের এটাই বড় চমক বলে মন্তব্য করেছেন সেখানকার বাঙালি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। তারা আগামীতে সেখানকার পার্লামেন্টসহ আরও দায়িত্বশীল বড় পদে বাঙালিরা নেতৃত্ব দিবেন বলে প্রত্যাশা করে সবার দোয় চাইছেন।

জানা যায়, মৌলভীবাজার জেলা সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামের মেয়ে ও সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পুত্রবধূ ড. বাবলিন মল্লিক। ষাটের দশকে মৌলভীবাজার ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জাতীয় পরিষদ সদস্য, প্রবাসের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মোহাম্মদ ফিরোজ আহমদের মেয়ে ড. বাবলিন।
বৃটেনের ওয়েলসের ইতিহাসে এই প্রথম দক্ষিণ এশিয়ার মধ্য থেকে মুসলিম নারী লর্ড মেয়র তিনি, যা বাঙালিদের জন্য আরেকটি সাফল্য অর্জনের মাধ্যমে নব ইতিহাস সৃষ্টি করেছে।

তিনি এর আগে দুইবার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবং এমপি নির্বাচনেও অংশ নেন। মেয়র বাবলিনের স্বামী অধ্যাপক মল্লিক মোসাদ্দেক আহমেদ ও বৃটিশ রাজনীতির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। বাবলিন মল্লিক ছোট বেলায় মা-বাবার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান। কার্ডিফে বেড়ে ওটা বর্তমান প্রজন্মের মেধাবী মুখ বাবলিন দুই ভাই এবং বোনের মধ্যে সবার ছোট।

তিনি বায়ো ক্যামিসট্রিতে মাস্টার্স ও কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি কার্ডিফ এলাকায় বাংলাদেশি কমিউনিটির মাঝে শেকড় নামে একটি বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। চ্যারিটেবল সংগঠন, সাংস্কৃতিক অঙ্গন এবং কমিউনিটির উন্নয়নে নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এই তথ্যটি নিশ্চিত করে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাঙালিদের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বৃটেনের বিশিষ্ট বাঙালি কমিউনিটি লিডার ও সংগঠক মোহাম্মদ মকিস মনসুর। তিনি বলেন, তার এমন ধারাবাহিক সাফল্যে বাঙালি বর্তমান প্রজন্মকে সেখানকার রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে আগামীতে আরও বড় দায়িত্ব অর্জন ও পালনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাজ্যের কার্ডিফের লর্ড মেয়রের দায়িত্ব নিলেন মৌলভীবাজারের মেয়ে

আপডেট টাইম : 08:09:54 am, Thursday, 1 June 2023

প্রবাস ডেস্ক: প্রবাসী ও পর্যটন অধ্যুষিত মৌলভীবাজারের মেয়ে ড. বাবলিন মল্লিক বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলের লর্ড মেয়র নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। গত ২৫ মে তিনি ১১৮তম লর্ড মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর আগে গত মার্চের শেষের দিকে তিনি লর্ড মেয়র নির্বাচিত হন।

তার এমন সাফল্য আত্মীয়স্বজনসহ জেলাবাসী উৎফুল্ল। যুক্তরাজ্যে বসবাসরত মৌলভীবাজার জেলার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত দুই ডজনেরও বেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর ধারাবাহিক সাফল্যের এটাই বড় চমক বলে মন্তব্য করেছেন সেখানকার বাঙালি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। তারা আগামীতে সেখানকার পার্লামেন্টসহ আরও দায়িত্বশীল বড় পদে বাঙালিরা নেতৃত্ব দিবেন বলে প্রত্যাশা করে সবার দোয় চাইছেন।

জানা যায়, মৌলভীবাজার জেলা সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামের মেয়ে ও সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পুত্রবধূ ড. বাবলিন মল্লিক। ষাটের দশকে মৌলভীবাজার ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জাতীয় পরিষদ সদস্য, প্রবাসের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মোহাম্মদ ফিরোজ আহমদের মেয়ে ড. বাবলিন।
বৃটেনের ওয়েলসের ইতিহাসে এই প্রথম দক্ষিণ এশিয়ার মধ্য থেকে মুসলিম নারী লর্ড মেয়র তিনি, যা বাঙালিদের জন্য আরেকটি সাফল্য অর্জনের মাধ্যমে নব ইতিহাস সৃষ্টি করেছে।

তিনি এর আগে দুইবার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবং এমপি নির্বাচনেও অংশ নেন। মেয়র বাবলিনের স্বামী অধ্যাপক মল্লিক মোসাদ্দেক আহমেদ ও বৃটিশ রাজনীতির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। বাবলিন মল্লিক ছোট বেলায় মা-বাবার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান। কার্ডিফে বেড়ে ওটা বর্তমান প্রজন্মের মেধাবী মুখ বাবলিন দুই ভাই এবং বোনের মধ্যে সবার ছোট।

তিনি বায়ো ক্যামিসট্রিতে মাস্টার্স ও কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি কার্ডিফ এলাকায় বাংলাদেশি কমিউনিটির মাঝে শেকড় নামে একটি বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। চ্যারিটেবল সংগঠন, সাংস্কৃতিক অঙ্গন এবং কমিউনিটির উন্নয়নে নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এই তথ্যটি নিশ্চিত করে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাঙালিদের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বৃটেনের বিশিষ্ট বাঙালি কমিউনিটি লিডার ও সংগঠক মোহাম্মদ মকিস মনসুর। তিনি বলেন, তার এমন ধারাবাহিক সাফল্যে বাঙালি বর্তমান প্রজন্মকে সেখানকার রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে আগামীতে আরও বড় দায়িত্ব অর্জন ও পালনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।