Dhaka , Monday, 17 June 2024

‘বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগে মালয়েশিয়ার সুবর্ণসুযোগ’

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 09:11:43 am, Friday, 2 June 2023
  • 64 বার

মালয়েশিয়া ডেস্ক: মালয়েশিয়া দক্ষ জনশক্তি খাতে বিনিয়োগ করে এবং বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলে কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে লাভবান হতে পরে। বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগে মালয়েশিয়ার সুবর্ণসুযোগ রয়েছে।

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিএমসিসিআই) আয়োজিত বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও বাণিজ্য সম্ভাবনা বিষয়ক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমেদ এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, রূপকল্প ২০৪১-এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে একটি স্বনির্ভর ও টেকসই অর্থনীতির দেশে রূপান্তর করা। তিনি বাংলাদেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়নে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিএমসিসিআই)’র ভূমিকার কথাও তুলে ধরেন।

মন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং বিনিয়োগের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাজার হিসেবে এর সম্ভাবনার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বাংলাদেশের কৌশলগত অবস্থান, দক্ষ জনবল এবং বিভিন্ন খাতে ব্যবসার সুযোগের বিষয়ও তুলে ধরেন। তিনি আসন্ন ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়ায় অংশগ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাই এবং দর্শকদের আমন্ত্রণ জানান।

বিএমসিসিআই’র সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির অনুষ্ঠানে কী-নোট পেপার উপস্থাপন করেন। তিনি তার উপস্থাপনায় গত ৫০ বছরে বাংলাদেশের অবিশ্বাস্য উন্নয়নের গল্প তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ তার উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা হিসেবে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে উন্নীত করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় সকল মানদণ্ড সফলভাবে পূরণ করেছে বাংলাদেশ। তিনি বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত সম্ভাব্য খাতগুলো নিয়ে আলোচনা করেন এবং ভোক্তা হিসেবে বাংলাদেশের সম্ভাবনা তুলে ধরেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বিপুল কর্মক্ষম যুব জনগোষ্ঠী বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার মোহাম্মদ খোরশেদ এ খাস্তগীর, পিএইচপি অটোমোবাইলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আক্তার পারভেজ চৌধুরি, ম্যাট্রেড-এর কেন্দ্রীয় (দক্ষিণ-পশ্চিম ও আফ্রিকা) পরিচালক ইদহাম আব্দুল হামিদ, (MASSA)-এর নির্বাহী সচিব এনজি সু ফান প্যানেলিস্ট হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

তারা বলেন, বাংলাদেশ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ভূ-অর্থনৈতিক শক্তির একটি মৌলিক নিয়ামক হয়ে উঠেছে এবং দেশটি বাংলাদেশ নতুন বিনিয়োগের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠছে। তারা বলেন, সেমিনারটি ব্যবসায়ী এবং বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুযোগ সম্পর্কে আরও জানতে এবং বাংলাদেশি কোম্পানিগুলোর সাথে সম্ভাব্য ব্যবসার সুযোগ খুঁজে বের করার একটি চমৎকার উপলক্ষ।

বিএমসিসিআই-এর কোষাধ্যক্ষ ও জিডি অ্যাসিস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মঈনুদ্দিন আহমেদ প্যানেল আলোচনা পরিচালনা করেন। সেমিনারে বিএমসিসিআই’র পরিচালক এবং শোকেস মালয়েশিয়ার আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ এ হাবিব আসন্ন ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়া ২০২৩ এর সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। এই আসরটি আগামী ৩১ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে যেখানে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন খাতের সেবা ও পণ্য প্রদর্শন করা হবে।

এ মেলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে মালয়েশিয়ান ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মিলিত হওয়া, ব্যবসা-বাণিজ্যের সম্ভাবনা সম্পর্কে ধারণা নেওয়া এবং বাংলাদেশের বাজার সম্পর্কে আরও জানার সুযোগ পাবেন। ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়া সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

এ লক্ষ্যে উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল মালয়েশিয়ার ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা এবং অংশীদারী সংস্থাগুলোর সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক বৃদ্ধি এবং শক্তিশালী করতে গত ৩০ মে থেকে আগামী ৩ জুন পর্যন্ত মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর সফর করবেন। মালয়েশিয়ার অনেক ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারী সেমিনারে অংশ নিচ্ছেন এবং তারা বাংলাদেশ ও এর বাণিজ্য ও বিনিয়োগের পরিবেশ সম্পর্কে খোঁজখবর নিচ্ছেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

‘বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগে মালয়েশিয়ার সুবর্ণসুযোগ’

আপডেট টাইম : 09:11:43 am, Friday, 2 June 2023

মালয়েশিয়া ডেস্ক: মালয়েশিয়া দক্ষ জনশক্তি খাতে বিনিয়োগ করে এবং বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলে কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে লাভবান হতে পরে। বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগে মালয়েশিয়ার সুবর্ণসুযোগ রয়েছে।

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিএমসিসিআই) আয়োজিত বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও বাণিজ্য সম্ভাবনা বিষয়ক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমেদ এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, রূপকল্প ২০৪১-এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে একটি স্বনির্ভর ও টেকসই অর্থনীতির দেশে রূপান্তর করা। তিনি বাংলাদেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়নে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিএমসিসিআই)’র ভূমিকার কথাও তুলে ধরেন।

মন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং বিনিয়োগের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাজার হিসেবে এর সম্ভাবনার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বাংলাদেশের কৌশলগত অবস্থান, দক্ষ জনবল এবং বিভিন্ন খাতে ব্যবসার সুযোগের বিষয়ও তুলে ধরেন। তিনি আসন্ন ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়ায় অংশগ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাই এবং দর্শকদের আমন্ত্রণ জানান।

বিএমসিসিআই’র সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির অনুষ্ঠানে কী-নোট পেপার উপস্থাপন করেন। তিনি তার উপস্থাপনায় গত ৫০ বছরে বাংলাদেশের অবিশ্বাস্য উন্নয়নের গল্প তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ তার উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা হিসেবে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে উন্নীত করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় সকল মানদণ্ড সফলভাবে পূরণ করেছে বাংলাদেশ। তিনি বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত সম্ভাব্য খাতগুলো নিয়ে আলোচনা করেন এবং ভোক্তা হিসেবে বাংলাদেশের সম্ভাবনা তুলে ধরেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বিপুল কর্মক্ষম যুব জনগোষ্ঠী বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার মোহাম্মদ খোরশেদ এ খাস্তগীর, পিএইচপি অটোমোবাইলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আক্তার পারভেজ চৌধুরি, ম্যাট্রেড-এর কেন্দ্রীয় (দক্ষিণ-পশ্চিম ও আফ্রিকা) পরিচালক ইদহাম আব্দুল হামিদ, (MASSA)-এর নির্বাহী সচিব এনজি সু ফান প্যানেলিস্ট হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

তারা বলেন, বাংলাদেশ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ভূ-অর্থনৈতিক শক্তির একটি মৌলিক নিয়ামক হয়ে উঠেছে এবং দেশটি বাংলাদেশ নতুন বিনিয়োগের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠছে। তারা বলেন, সেমিনারটি ব্যবসায়ী এবং বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুযোগ সম্পর্কে আরও জানতে এবং বাংলাদেশি কোম্পানিগুলোর সাথে সম্ভাব্য ব্যবসার সুযোগ খুঁজে বের করার একটি চমৎকার উপলক্ষ।

বিএমসিসিআই-এর কোষাধ্যক্ষ ও জিডি অ্যাসিস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মঈনুদ্দিন আহমেদ প্যানেল আলোচনা পরিচালনা করেন। সেমিনারে বিএমসিসিআই’র পরিচালক এবং শোকেস মালয়েশিয়ার আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ এ হাবিব আসন্ন ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়া ২০২৩ এর সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। এই আসরটি আগামী ৩১ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে যেখানে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন খাতের সেবা ও পণ্য প্রদর্শন করা হবে।

এ মেলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে মালয়েশিয়ান ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মিলিত হওয়া, ব্যবসা-বাণিজ্যের সম্ভাবনা সম্পর্কে ধারণা নেওয়া এবং বাংলাদেশের বাজার সম্পর্কে আরও জানার সুযোগ পাবেন। ৬ষ্ঠ শোকেস মালয়েশিয়া সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

এ লক্ষ্যে উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল মালয়েশিয়ার ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা এবং অংশীদারী সংস্থাগুলোর সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক বৃদ্ধি এবং শক্তিশালী করতে গত ৩০ মে থেকে আগামী ৩ জুন পর্যন্ত মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর সফর করবেন। মালয়েশিয়ার অনেক ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারী সেমিনারে অংশ নিচ্ছেন এবং তারা বাংলাদেশ ও এর বাণিজ্য ও বিনিয়োগের পরিবেশ সম্পর্কে খোঁজখবর নিচ্ছেন।