Dhaka , Monday, 17 June 2024

যে ছয় আমলে বরকত বৃদ্ধি পায়

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:52:25 am, Friday, 2 June 2023
  • 72 বার

ইসলাম ডেস্ক: বিশেষ কিছু নেক কাজের মাধ্যমে ব্যক্তি আল্লাহর বরকত লাভ করে। নিম্নে এমন ছয়টি কাজের বর্ণনা দেওয়া হলো।

১. আত্মীয়তার সম্পর্ক রক্ষা করা : মহানবী (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি চায় তার জীবিকা প্রশস্ত হোক এবং আয়ু বৃদ্ধি পাক সে যেন আত্মীয়তার বন্ধন অক্ষুণ্ণ রাখে।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৫৯৮৬)

২. বেচাকেনায় সততা : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘ক্রেতা-বিক্রেতা পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের (গ্রহণ ও বর্জনের) এখতিয়ার রয়েছে।

যদি তারা সত্য বলে ও পণ্যের দোষ-ত্রুটি স্পষ্ট করে, তবে তাদের বেচাকেনায় বরকত দান করা হয়। আর যদি তারা মিথ্যা বলে এবং দোষ-ত্রুটি গোপন করে, তাদের বেচাকেনার বরকত কেড়ে নেওয়া হয়।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ২১১০)

৩. মহর নির্ধারণে সহজতা : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘সে স্ত্রী বরকতের দিক থেকে উত্তম, যে মহরের বিবেচনায় বেশি সহজ (বা কম)।’ (মুসনাদে আহমদ, হাদিস : ২৫১১৩)

৪. সালাম দেওয়া : আনাস (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) আমাকে বলেন, ‘হে ছেলে, যখন তুমি ঘরে প্রবেশ করো সালাম দাও, তোমার ও তোমার পরিবারের জন্য বরকত হবে।’ (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ২৬৯৮)

৫. দান করা : আল্লাহ বলেন, ‘হে আদমসন্তান, তুমি খরচ করো, তোমার জন্য খরচ করা হবে (অর্থাৎ প্রাচুর্য আসবে)।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৫৩৫২)

৬. মিলেমিশে খাওয়া : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘তোমরা খাবারে একত্র হও, আল্লাহর নাম স্মরণ করো তাতে তোমাদের জন্য বরকত দেওয়া হবে।’ (মিশকাতুল মাসাবিহ, হাদিস : ৪২৫২)

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জনপ্রিয় সংবাদ

যে ছয় আমলে বরকত বৃদ্ধি পায়

আপডেট টাইম : 08:52:25 am, Friday, 2 June 2023

ইসলাম ডেস্ক: বিশেষ কিছু নেক কাজের মাধ্যমে ব্যক্তি আল্লাহর বরকত লাভ করে। নিম্নে এমন ছয়টি কাজের বর্ণনা দেওয়া হলো।

১. আত্মীয়তার সম্পর্ক রক্ষা করা : মহানবী (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি চায় তার জীবিকা প্রশস্ত হোক এবং আয়ু বৃদ্ধি পাক সে যেন আত্মীয়তার বন্ধন অক্ষুণ্ণ রাখে।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৫৯৮৬)

২. বেচাকেনায় সততা : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘ক্রেতা-বিক্রেতা পরস্পর থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের (গ্রহণ ও বর্জনের) এখতিয়ার রয়েছে।

যদি তারা সত্য বলে ও পণ্যের দোষ-ত্রুটি স্পষ্ট করে, তবে তাদের বেচাকেনায় বরকত দান করা হয়। আর যদি তারা মিথ্যা বলে এবং দোষ-ত্রুটি গোপন করে, তাদের বেচাকেনার বরকত কেড়ে নেওয়া হয়।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ২১১০)

৩. মহর নির্ধারণে সহজতা : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘সে স্ত্রী বরকতের দিক থেকে উত্তম, যে মহরের বিবেচনায় বেশি সহজ (বা কম)।’ (মুসনাদে আহমদ, হাদিস : ২৫১১৩)

৪. সালাম দেওয়া : আনাস (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) আমাকে বলেন, ‘হে ছেলে, যখন তুমি ঘরে প্রবেশ করো সালাম দাও, তোমার ও তোমার পরিবারের জন্য বরকত হবে।’ (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ২৬৯৮)

৫. দান করা : আল্লাহ বলেন, ‘হে আদমসন্তান, তুমি খরচ করো, তোমার জন্য খরচ করা হবে (অর্থাৎ প্রাচুর্য আসবে)।’ (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৫৩৫২)

৬. মিলেমিশে খাওয়া : রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘তোমরা খাবারে একত্র হও, আল্লাহর নাম স্মরণ করো তাতে তোমাদের জন্য বরকত দেওয়া হবে।’ (মিশকাতুল মাসাবিহ, হাদিস : ৪২৫২)