Dhaka , Wednesday, 24 April 2024

মাটির ১৩৭৫ ফুট গভীরে ঘুমাতে পারবেন ‘ডিপ স্লিপ হোটেলে’

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:33:04 am, Monday, 19 June 2023
  • 90 বার

ভ্রমণ ডেস্ক: বিশ্বের গভীরতম হোটেল কোনটি? এই প্রশ্নের উত্তর হয়তো অনেকেরই অজানা। জানলে অবাক হবেন, বিশ্বের সবচেয়ে গভীরতম হোটেলটি মাটির এক হাজার ৩৭৫ ফুট বা ৪১৯ মিটার নিচে অবস্থিত।

যুক্তরাজ্যের ওয়েলসের স্নোডোনিয়া পাহাড়ের নীচে একটি পরিত্যক্ত খনিতে অবস্থিত ‘ডিপ স্লিপ’ নামক বিশ্বের গভীরতম হোটেলটি। চারটি প্রাইভেট টুইন-বেড কেবিন ও একটি ডাবল বেডসহ একটি গ্রোটো রুম, একটি ডাইনিং এরিয়া ও টয়লেট আছে এই হোটেলে।

ডিপ স্লিপ হোটেলটি কিন্তু মোটেও অন্যান্য হোটেলের মতো নয়। এই হোটেল নির্মিত হয়েছে একটি ভূ-গর্ভস্থ পরিত্যক্ত সিমোরথিন স্লেট খনির একটি অংশের মধ্যে। এরপর থেকেই এটি বিশ্বের গভীরতম হোটেল হিসেবে বিজ্ঞাপিত হচ্ছে।

যদি সত্যিই আপনি মাটির এতো নিচে রাত কাটাতে চান, তাহলে প্রতিরাতে আপনাকে সাড়ে ৫০০ পাউন্ড বা ৬৮৮ মার্কিন ডলার পর্যন্ত অর্থ গুনতে হতে পারে। আর এই হোটেলে ঢুকতে মাটির অতলে একটি খাড়া ও চ্যালেঞ্জিং পথ অতিক্রম করতে হবে।

ডিপ স্লিপ হোটেলটি চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আউটডোর অ্যাক্টিভিটি কোম্পানি গো বিলো দ্বারা উদ্বোধন করা হয়। প্রতি সপ্তাহের শনিবার অর্থাৎ মাত্র একরাতের জন্য হোটেলটি খোলা থাকে।

পৃষ্ঠপোষকরা অনলাইনে রিজার্ভেশনের মাধ্যমে অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান শনিবার সন্ধ্যায়। তারপর তাদেরকে ব্লেনাউ এফফেস্টিনিওগ শহরের কাছে গো বেলো বেসে ভ্রমণের মাধ্যমে দুঃসাহসিক যাত্রা শুরু করেন।

প্রশিক্ষিত গাইডরা অতিথিদেরকে সঙ্গে নিয়ে ভূ-গর্ভস্থ হোটেলে যান। পুরো এই জার্নিতে পাহাড়ের মধ্য দিয়ে ৪৫ মিনিটের জন্য ট্রেক করতে হয়। এরপর অতিথিরা একটি ছোট কুটিরে ওঠেন। যার তলদেশেই অবস্থিত হোটেলটি।

প্রশিক্ষিতদের সঙ্গে এরপর খনিতে অবতরণের জন্য প্রস্তুত হন অতিথিরা। চ্যালেঞ্জিং রুটে পুরোনো সিঁড়ি, পরিত্যক্ত ব্রিজ ও স্ল্যাকলাইন আছে। হোটেলে পৌঁছাতে প্রায় ঘণ্টাখানেক সময় লাগে।

ডিপ স্লিপ হোটেলে প্রবেশের পর অতিথিদেরকে একটি উষ্ণ পানীয় ও একটি অভিযান-স্টাইলের খাবার খাওয়ানো হয়। বিশ্বের গভীরতম হোটেলের তাপমাত্রা সারা বছর স্থির অর্থার ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকে।

তবে সেখানকার উত্তাপযুক্ত কেবিনগুলোই বেশ আরামদায়ক বলে জানা গেছে।এই হোটেলে ফোরজি’র অ্যান্টেনা থেকে শুরু করে ইন্টারনেট পানি, বিদ্যুৎ এমনকি ওয়াই-ফাইয়ের সুবিধাও পাবেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

মাটির ১৩৭৫ ফুট গভীরে ঘুমাতে পারবেন ‘ডিপ স্লিপ হোটেলে’

আপডেট টাইম : 08:33:04 am, Monday, 19 June 2023

ভ্রমণ ডেস্ক: বিশ্বের গভীরতম হোটেল কোনটি? এই প্রশ্নের উত্তর হয়তো অনেকেরই অজানা। জানলে অবাক হবেন, বিশ্বের সবচেয়ে গভীরতম হোটেলটি মাটির এক হাজার ৩৭৫ ফুট বা ৪১৯ মিটার নিচে অবস্থিত।

যুক্তরাজ্যের ওয়েলসের স্নোডোনিয়া পাহাড়ের নীচে একটি পরিত্যক্ত খনিতে অবস্থিত ‘ডিপ স্লিপ’ নামক বিশ্বের গভীরতম হোটেলটি। চারটি প্রাইভেট টুইন-বেড কেবিন ও একটি ডাবল বেডসহ একটি গ্রোটো রুম, একটি ডাইনিং এরিয়া ও টয়লেট আছে এই হোটেলে।

ডিপ স্লিপ হোটেলটি কিন্তু মোটেও অন্যান্য হোটেলের মতো নয়। এই হোটেল নির্মিত হয়েছে একটি ভূ-গর্ভস্থ পরিত্যক্ত সিমোরথিন স্লেট খনির একটি অংশের মধ্যে। এরপর থেকেই এটি বিশ্বের গভীরতম হোটেল হিসেবে বিজ্ঞাপিত হচ্ছে।

যদি সত্যিই আপনি মাটির এতো নিচে রাত কাটাতে চান, তাহলে প্রতিরাতে আপনাকে সাড়ে ৫০০ পাউন্ড বা ৬৮৮ মার্কিন ডলার পর্যন্ত অর্থ গুনতে হতে পারে। আর এই হোটেলে ঢুকতে মাটির অতলে একটি খাড়া ও চ্যালেঞ্জিং পথ অতিক্রম করতে হবে।

ডিপ স্লিপ হোটেলটি চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আউটডোর অ্যাক্টিভিটি কোম্পানি গো বিলো দ্বারা উদ্বোধন করা হয়। প্রতি সপ্তাহের শনিবার অর্থাৎ মাত্র একরাতের জন্য হোটেলটি খোলা থাকে।

পৃষ্ঠপোষকরা অনলাইনে রিজার্ভেশনের মাধ্যমে অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান শনিবার সন্ধ্যায়। তারপর তাদেরকে ব্লেনাউ এফফেস্টিনিওগ শহরের কাছে গো বেলো বেসে ভ্রমণের মাধ্যমে দুঃসাহসিক যাত্রা শুরু করেন।

প্রশিক্ষিত গাইডরা অতিথিদেরকে সঙ্গে নিয়ে ভূ-গর্ভস্থ হোটেলে যান। পুরো এই জার্নিতে পাহাড়ের মধ্য দিয়ে ৪৫ মিনিটের জন্য ট্রেক করতে হয়। এরপর অতিথিরা একটি ছোট কুটিরে ওঠেন। যার তলদেশেই অবস্থিত হোটেলটি।

প্রশিক্ষিতদের সঙ্গে এরপর খনিতে অবতরণের জন্য প্রস্তুত হন অতিথিরা। চ্যালেঞ্জিং রুটে পুরোনো সিঁড়ি, পরিত্যক্ত ব্রিজ ও স্ল্যাকলাইন আছে। হোটেলে পৌঁছাতে প্রায় ঘণ্টাখানেক সময় লাগে।

ডিপ স্লিপ হোটেলে প্রবেশের পর অতিথিদেরকে একটি উষ্ণ পানীয় ও একটি অভিযান-স্টাইলের খাবার খাওয়ানো হয়। বিশ্বের গভীরতম হোটেলের তাপমাত্রা সারা বছর স্থির অর্থার ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকে।

তবে সেখানকার উত্তাপযুক্ত কেবিনগুলোই বেশ আরামদায়ক বলে জানা গেছে।এই হোটেলে ফোরজি’র অ্যান্টেনা থেকে শুরু করে ইন্টারনেট পানি, বিদ্যুৎ এমনকি ওয়াই-ফাইয়ের সুবিধাও পাবেন।