Dhaka , Wednesday, 29 May 2024

আমিরাতে ‘বেকারত্ব বীমা’ নিবন্ধনের সময়সীমা ১ অক্টোবর

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:21:23 am, Tuesday, 20 June 2023
  • 31 বার

প্রবাস ডেস্ক: চাকরিচ্যুত বা অবসরের পর নতুন চাকরি না পাওয়া পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থানরত যেকোনো দেশের নাগরিককে বেকারত্ব ভাতা প্রদান করবে দেশটির সরকার।

অর্থনৈতিক সংস্কারের অংশ হিসেবে বেকারত্ব বীমা চালু করেছে পারস্য উপসাগরীয় দেশটি। শুধুমাত্র বৈধভাবে বসবাসকারীরা এই সুবিধা পাবেন।

এই বীমা ৩০ জুনের পরিবর্তে আরও তিনমাস বাড়িয়ে শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে চলতি বছরের ১ অক্টোবর। এই সময়ের মধ্যে ‘বেকারত্ব বীমা’ গ্রহণ না করলে ৪০০ দিরহাম জরিমানা গুণতে হবে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১২ হাজার টাকা।
দেশটির মানবসম্পদ ও এমিরেটাইজেশন মন্ত্রণালয় সূত্রে স্থানীয় গণমাধ্যম খালিজ টাইমস জানায়, এই বীমার নিবন্ধনকারীরা কোনো কারণে চাকরি হারালে তাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে তিন মাসের মূল বেতনের ৬০ শতাংশ সমপরিমাণ অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে।

এজন্য কর্মীদের চাকরি হারানোর ৩০ দিনের মধ্যে বিষয়টি বীমা কর্তৃপক্ষের নজরে আনতে হবে। পাশাপাশি ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করতে হবে। তবে কোনো কর্মী যদি এরমধ্যে অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগদান করেন বা দেশে ফিরে যান তবে তিনি এই ক্ষতিপূরণ পাবেন না।

ইতোমধ্যে দেশটির ৪৬ লাখ কর্মী এই স্কিমের আওতায় এসেছেন। বিনিয়োগকারী, গৃহকর্মী, অস্থায়ী চুক্তিভিত্তিক কর্মী, ১৮ বছরের নিচের অভিবাসী, অবসর গ্রহণকারী বা নতুন কাজে প্রবেশ করা কর্মীরা এই বীমার বাইরে থাকবেন।

আবুধাবি দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর হাজেরা সাব্বির হোসেন বলেন, “আমিরাতের বেকারত্ব বীমার বিষয়টি সকল প্রবাসীদের জানা ও বীমার নিবন্ধন করা অত্যন্ত জরুরি। অন্যথায় জরিমানা গুণতে হবে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের এই ইনস্যুরেন্সের আওতায় আসার জন্য বিশেষভাবে আহ্বান জানিয়েছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর।”

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

আমিরাতে ‘বেকারত্ব বীমা’ নিবন্ধনের সময়সীমা ১ অক্টোবর

আপডেট টাইম : 08:21:23 am, Tuesday, 20 June 2023

প্রবাস ডেস্ক: চাকরিচ্যুত বা অবসরের পর নতুন চাকরি না পাওয়া পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থানরত যেকোনো দেশের নাগরিককে বেকারত্ব ভাতা প্রদান করবে দেশটির সরকার।

অর্থনৈতিক সংস্কারের অংশ হিসেবে বেকারত্ব বীমা চালু করেছে পারস্য উপসাগরীয় দেশটি। শুধুমাত্র বৈধভাবে বসবাসকারীরা এই সুবিধা পাবেন।

এই বীমা ৩০ জুনের পরিবর্তে আরও তিনমাস বাড়িয়ে শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে চলতি বছরের ১ অক্টোবর। এই সময়ের মধ্যে ‘বেকারত্ব বীমা’ গ্রহণ না করলে ৪০০ দিরহাম জরিমানা গুণতে হবে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১২ হাজার টাকা।
দেশটির মানবসম্পদ ও এমিরেটাইজেশন মন্ত্রণালয় সূত্রে স্থানীয় গণমাধ্যম খালিজ টাইমস জানায়, এই বীমার নিবন্ধনকারীরা কোনো কারণে চাকরি হারালে তাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে তিন মাসের মূল বেতনের ৬০ শতাংশ সমপরিমাণ অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে।

এজন্য কর্মীদের চাকরি হারানোর ৩০ দিনের মধ্যে বিষয়টি বীমা কর্তৃপক্ষের নজরে আনতে হবে। পাশাপাশি ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করতে হবে। তবে কোনো কর্মী যদি এরমধ্যে অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগদান করেন বা দেশে ফিরে যান তবে তিনি এই ক্ষতিপূরণ পাবেন না।

ইতোমধ্যে দেশটির ৪৬ লাখ কর্মী এই স্কিমের আওতায় এসেছেন। বিনিয়োগকারী, গৃহকর্মী, অস্থায়ী চুক্তিভিত্তিক কর্মী, ১৮ বছরের নিচের অভিবাসী, অবসর গ্রহণকারী বা নতুন কাজে প্রবেশ করা কর্মীরা এই বীমার বাইরে থাকবেন।

আবুধাবি দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর হাজেরা সাব্বির হোসেন বলেন, “আমিরাতের বেকারত্ব বীমার বিষয়টি সকল প্রবাসীদের জানা ও বীমার নিবন্ধন করা অত্যন্ত জরুরি। অন্যথায় জরিমানা গুণতে হবে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের এই ইনস্যুরেন্সের আওতায় আসার জন্য বিশেষভাবে আহ্বান জানিয়েছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর।”