Dhaka , Friday, 24 May 2024

জার্মানিতে মৌসুমি কর্মী হিসেবে আসবেন যেভাবে

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 09:03:20 am, Saturday, 1 July 2023
  • 54 বার

প্রবাস ডেস্ক: মৌসুমি কর্মী নেওয়ার ক্ষেত্রে ইউরোপের দেশগুলোর নীতি অনেকটাই দেশভিত্তিক। তবে কৃষিখাতে মৌসুমি কর্মী প্রয়োজন হয় সবচেয়ে বেশি।

অধিকাংশ মৌসুমি কর্মী ভিসা বছরের নির্দিষ্ট একটি সময়ের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে। আর এই ভিসা নিয়ে যারা আসেন তাদের সাধারণত অন্য কাজ করতে দেওয়া হয় না। কাজ শুরুর আগে আগে তাদের ইউরোপে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় এবং কাজের মাসগুলো শেষে তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

যদিও অন্য কাজ করতে দেওয়া হয় না, তবে ইউরোপের কিছু দেশ মৌসুমি ভিসায় আসা কর্মীদের পড়াশোনার বা প্রশিক্ষণের জন্য আবেদনের সুযোগ দেয়।

জার্মানিতে মৌসুমি কাজ

জার্মানির কৃষিখাতকে এগিয়ে নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন মৌসুমি কর্মীরা। তারা সাধারণত ফসল ফলানোর সময়টায় কাজ করেন যা মার্চ থেকে অক্টোবর অবধি হয়ে থাকে। অধিকাংশই সরাসরি খামার কর্তৃপক্ষ কিংবা কোনো এজেন্সির মাধ্যমে নিয়োগ পেয়ে থাকেন। কিছু নিয়োগ প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন দেশে গিয়েও কর্মী নিয়োগ করে নিয়ে আসেন।

একজন কর্মী ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ভেতরের নাকি বাইরের নাগরিক তার ওপরে তার ভিসা প্রক্রিয়া নির্ভর করে। আপনি যদি ইইউর বাইরের দেশের বাসিন্দা হন তাহলে ১৮০ দিনের মধ্যে ৯০ দিন কাজ করতে পারবেন। আর এজন্য সংশ্লিষ্ট দেশে জার্মানির দূতাবাসে ভিসা আবেদন করতে হবে আসার তারিখের অন্তত আট থেকে ১০ সপ্তাহ আগে।

জার্মানিতে মৌসুমি কর্মীদের যেভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়

জার্মানির কেন্দ্রীয় নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান বিএ আপনি মৌসুমি কর্মী হিসেবে কাজ করার উপযুক্ত কিনা তা যাচাই করবে। তারা উপযুক্ত মনে করলে আপনাকে কাজের অনুমতি দেবে। ইইউভুক্ত মানুষদের অবশ্য আলাদাভাবে এই অনুমতির প্রয়োজন নেই।

কাজের অনুমতিতে আপনি কোন সময় কাজ করতে পারবেন তা পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করা থাকবে। এমনকি যদি আপনি নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শুরু নাও করতে পারেন তারপরও ভিসায় উল্লিখিত মেয়াদের বেশি সময় কাজ করতে পারবেন না।

জর্জিয়া এবং মালদোভার নাগরিকদের ক্ষেত্রে ভিসা পাওয়ার আগেও কাজের অনুমতি দেওয়া যায়।

সামাজিক সুরক্ষা এবং অন্যান্য সুবিধা

জার্মানিতে আপনার সামাজিক সুরক্ষা বীমায় কিস্তি দিতে হবে। আপনি যদি তৃতীয় কোনো দেশ থেকে এসে থাকেন এবং আপনার যদি এওয়ান সার্টিফিকেট (যার অর্থ হচ্ছে আপনার নিজ দেশে সামাজিক সুরক্ষা বীমা রয়েছে) না থাকে তাহলে আপনি কত টাকা কিস্তি হিসেবে বীমায় দেবেন সেটা নির্ধারণের জন্য একটা ফর্ম পূরণ করতে হবে।

জার্মানিতে অনেক ধরনের স্বাস্থ্য বীমা আছে। আপনি সেখান থেকে একটি বাছাই করতে পারেন।

আপনি যদি জার্মানিতে কাজ করে থাকেন এবং বিদেশে আপনার স্বাস্থ্যবীমা না থাকে তাহলে আপনার নিয়োগ দাতা আপনার জন্য বেসরকারি স্বাস্থ্যবীমার আয়োজন করতে পারেন। এটির কিস্তি আপনার বেতন থেকে কাটা যাবে না।

আপনার আইনি অধিকার

আপনি মৌসুমি কর্মী হলেও জার্মান শ্রম আইন আপনার জন্য প্রযোজ্য। এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য বিএ’র ওয়েবসাইটে পাবেন। সেখানে বিভিন্ন পরামর্শ কেন্দ্রের ঠিকানাও রয়েছে যেখানে আপনি সরাসরি গিয়ে তথ্য পেতে পারেন।

জার্মানিতে কর্মদিবস অধিকাংশ ক্ষেত্রে আটঘণ্টার বেশি হয় না। কখনো কখনো সেটা দশঘণ্টা অবধি হতে পারে। তবে দুটি শিফটের মধ্যে আপনার অন্তত ১১ ঘণ্টা বিশ্রামের প্রয়োজন হবে।

আপনি যদি দিনে ছয় থেকে নয় ঘণ্টার মধ্যে কাজ করেন তাহলে কাজের মধ্যে ৩০ মিনিটের একটি বিরতি পাবেন। যারা পূর্ণকালীন চাকরি করেন তাদের মাসপ্রতি অন্তত দুইদিন করে বেতনসহ ছুটি পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

আপনার চুক্তি শেষ হওয়ার আগে সেই ছুটি নিতে পারবেন। আপনি যদি রোববার বা অন্য কোনো সরকারি ছুটির দিনে কাজ করে থাকেন তাহলে তার পরিবর্তে আপনাকে একদিন ছুটি দিতে হবে।

জার্মানিতে ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ করা আছে। আপনাকে কেউ ঘণ্টাপ্রতি ১২ ইউরোর নিচে মজুরি দিতে পারবে না। এই সংখ্যা অবশ্য কর এবং অন্যান্য খরচসহ।

আপনার নিয়োগদাতা আপনাকে কর এবং অন্যান্য খরচ হিসেবে বেতন থেকে যা কাটা হয়েছে সেই তথ্য তালিকা আকারে প্রদান করবেন।

আপনার নিয়োগদাতা যদি আপনার বাসস্থানের ব্যবস্থা করে থাকেন তাহলে সেই বাবদ একটি খরচ বেতন থেকে কেটে রাখতে পারেন। সেটাও বেতনের স্লিপে উল্লেখ করতে হবে।

জার্মানিতে মৌসুমি কাজের জন্য যেভাবে আবেদন করবেন

আপনি চাকরি খুঁজতে আন্তর্জাতিক প্লেসমেন্ট সার্ভিস (জেডএভি)-র কাস্টমার সেন্টারে যোগাযোগ করতে পারেন। নম্বর: +49 228 713 1313

জার্মানির ট্রেড ইউনিয়ন কনফারেন্স (ডিজিবি)-র ওয়েবসাইটেও একাধিক ভাষায় মৌসুমি কর্মীদের জন্য প্রযোজ্য বিভিন্ন তথ্য রয়েছে।

কৃষিখাতে মৌসুমি কর্মী হিসেবে কাজ করতে গিয়ে আপনি যদি কোনো সমস্যায় পড়েন তাহলে বেনজামিন লুয়েগের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। তার মোবাইল নম্বর: +49 151 67342680 এবং ইমেল ঠিকানা: benjamin.luig@emwu.org

জার্মানিতে কাজ করতে চাইলে এই ওয়েবসাইটটিও বেশ সহায়ক: www.make-it-in-germany.com

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

জার্মানিতে মৌসুমি কর্মী হিসেবে আসবেন যেভাবে

আপডেট টাইম : 09:03:20 am, Saturday, 1 July 2023

প্রবাস ডেস্ক: মৌসুমি কর্মী নেওয়ার ক্ষেত্রে ইউরোপের দেশগুলোর নীতি অনেকটাই দেশভিত্তিক। তবে কৃষিখাতে মৌসুমি কর্মী প্রয়োজন হয় সবচেয়ে বেশি।

অধিকাংশ মৌসুমি কর্মী ভিসা বছরের নির্দিষ্ট একটি সময়ের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে। আর এই ভিসা নিয়ে যারা আসেন তাদের সাধারণত অন্য কাজ করতে দেওয়া হয় না। কাজ শুরুর আগে আগে তাদের ইউরোপে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় এবং কাজের মাসগুলো শেষে তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

যদিও অন্য কাজ করতে দেওয়া হয় না, তবে ইউরোপের কিছু দেশ মৌসুমি ভিসায় আসা কর্মীদের পড়াশোনার বা প্রশিক্ষণের জন্য আবেদনের সুযোগ দেয়।

জার্মানিতে মৌসুমি কাজ

জার্মানির কৃষিখাতকে এগিয়ে নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন মৌসুমি কর্মীরা। তারা সাধারণত ফসল ফলানোর সময়টায় কাজ করেন যা মার্চ থেকে অক্টোবর অবধি হয়ে থাকে। অধিকাংশই সরাসরি খামার কর্তৃপক্ষ কিংবা কোনো এজেন্সির মাধ্যমে নিয়োগ পেয়ে থাকেন। কিছু নিয়োগ প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন দেশে গিয়েও কর্মী নিয়োগ করে নিয়ে আসেন।

একজন কর্মী ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ভেতরের নাকি বাইরের নাগরিক তার ওপরে তার ভিসা প্রক্রিয়া নির্ভর করে। আপনি যদি ইইউর বাইরের দেশের বাসিন্দা হন তাহলে ১৮০ দিনের মধ্যে ৯০ দিন কাজ করতে পারবেন। আর এজন্য সংশ্লিষ্ট দেশে জার্মানির দূতাবাসে ভিসা আবেদন করতে হবে আসার তারিখের অন্তত আট থেকে ১০ সপ্তাহ আগে।

জার্মানিতে মৌসুমি কর্মীদের যেভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়

জার্মানির কেন্দ্রীয় নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান বিএ আপনি মৌসুমি কর্মী হিসেবে কাজ করার উপযুক্ত কিনা তা যাচাই করবে। তারা উপযুক্ত মনে করলে আপনাকে কাজের অনুমতি দেবে। ইইউভুক্ত মানুষদের অবশ্য আলাদাভাবে এই অনুমতির প্রয়োজন নেই।

কাজের অনুমতিতে আপনি কোন সময় কাজ করতে পারবেন তা পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করা থাকবে। এমনকি যদি আপনি নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শুরু নাও করতে পারেন তারপরও ভিসায় উল্লিখিত মেয়াদের বেশি সময় কাজ করতে পারবেন না।

জর্জিয়া এবং মালদোভার নাগরিকদের ক্ষেত্রে ভিসা পাওয়ার আগেও কাজের অনুমতি দেওয়া যায়।

সামাজিক সুরক্ষা এবং অন্যান্য সুবিধা

জার্মানিতে আপনার সামাজিক সুরক্ষা বীমায় কিস্তি দিতে হবে। আপনি যদি তৃতীয় কোনো দেশ থেকে এসে থাকেন এবং আপনার যদি এওয়ান সার্টিফিকেট (যার অর্থ হচ্ছে আপনার নিজ দেশে সামাজিক সুরক্ষা বীমা রয়েছে) না থাকে তাহলে আপনি কত টাকা কিস্তি হিসেবে বীমায় দেবেন সেটা নির্ধারণের জন্য একটা ফর্ম পূরণ করতে হবে।

জার্মানিতে অনেক ধরনের স্বাস্থ্য বীমা আছে। আপনি সেখান থেকে একটি বাছাই করতে পারেন।

আপনি যদি জার্মানিতে কাজ করে থাকেন এবং বিদেশে আপনার স্বাস্থ্যবীমা না থাকে তাহলে আপনার নিয়োগ দাতা আপনার জন্য বেসরকারি স্বাস্থ্যবীমার আয়োজন করতে পারেন। এটির কিস্তি আপনার বেতন থেকে কাটা যাবে না।

আপনার আইনি অধিকার

আপনি মৌসুমি কর্মী হলেও জার্মান শ্রম আইন আপনার জন্য প্রযোজ্য। এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য বিএ’র ওয়েবসাইটে পাবেন। সেখানে বিভিন্ন পরামর্শ কেন্দ্রের ঠিকানাও রয়েছে যেখানে আপনি সরাসরি গিয়ে তথ্য পেতে পারেন।

জার্মানিতে কর্মদিবস অধিকাংশ ক্ষেত্রে আটঘণ্টার বেশি হয় না। কখনো কখনো সেটা দশঘণ্টা অবধি হতে পারে। তবে দুটি শিফটের মধ্যে আপনার অন্তত ১১ ঘণ্টা বিশ্রামের প্রয়োজন হবে।

আপনি যদি দিনে ছয় থেকে নয় ঘণ্টার মধ্যে কাজ করেন তাহলে কাজের মধ্যে ৩০ মিনিটের একটি বিরতি পাবেন। যারা পূর্ণকালীন চাকরি করেন তাদের মাসপ্রতি অন্তত দুইদিন করে বেতনসহ ছুটি পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

আপনার চুক্তি শেষ হওয়ার আগে সেই ছুটি নিতে পারবেন। আপনি যদি রোববার বা অন্য কোনো সরকারি ছুটির দিনে কাজ করে থাকেন তাহলে তার পরিবর্তে আপনাকে একদিন ছুটি দিতে হবে।

জার্মানিতে ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ করা আছে। আপনাকে কেউ ঘণ্টাপ্রতি ১২ ইউরোর নিচে মজুরি দিতে পারবে না। এই সংখ্যা অবশ্য কর এবং অন্যান্য খরচসহ।

আপনার নিয়োগদাতা আপনাকে কর এবং অন্যান্য খরচ হিসেবে বেতন থেকে যা কাটা হয়েছে সেই তথ্য তালিকা আকারে প্রদান করবেন।

আপনার নিয়োগদাতা যদি আপনার বাসস্থানের ব্যবস্থা করে থাকেন তাহলে সেই বাবদ একটি খরচ বেতন থেকে কেটে রাখতে পারেন। সেটাও বেতনের স্লিপে উল্লেখ করতে হবে।

জার্মানিতে মৌসুমি কাজের জন্য যেভাবে আবেদন করবেন

আপনি চাকরি খুঁজতে আন্তর্জাতিক প্লেসমেন্ট সার্ভিস (জেডএভি)-র কাস্টমার সেন্টারে যোগাযোগ করতে পারেন। নম্বর: +49 228 713 1313

জার্মানির ট্রেড ইউনিয়ন কনফারেন্স (ডিজিবি)-র ওয়েবসাইটেও একাধিক ভাষায় মৌসুমি কর্মীদের জন্য প্রযোজ্য বিভিন্ন তথ্য রয়েছে।

কৃষিখাতে মৌসুমি কর্মী হিসেবে কাজ করতে গিয়ে আপনি যদি কোনো সমস্যায় পড়েন তাহলে বেনজামিন লুয়েগের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। তার মোবাইল নম্বর: +49 151 67342680 এবং ইমেল ঠিকানা: benjamin.luig@emwu.org

জার্মানিতে কাজ করতে চাইলে এই ওয়েবসাইটটিও বেশ সহায়ক: www.make-it-in-germany.com