Dhaka , Friday, 24 May 2024

ইউক্রেনকে ক্লাস্টার বোমা দেওয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সুর বদল

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:09:30 am, Saturday, 8 July 2023
  • 33 বার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আগেই শোনা গিয়েছিল রাশিয়ার সেনাদের প্রতিহত করতে ইউক্রেনকে নতুন নিরাপত্তা সহায়তার আওতায় ক্লাস্টার বোমা দিতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই ঘোষণার পরই জাতিসংঘ ও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর পক্ষ থেকে আসে সম্ভাব্য বিপর্যয়ের হুঁশিয়ারি। মার্কিন এই সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনাও করেন অনেকে।

এর প্রেক্ষিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, বেসামরিক নাগরিকদের ঝুঁকি বিবেচনায় আপাতত তারা এই সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে।

গত কয়েক মাস ধরেই পশ্চিমাদের কাছে আরো অস্ত্র চেয়ে আসছে ইউক্রেন।
বিশ্বের একশ’টির বেশি দেশ ক্লাস্টার বোমার ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। এই গুচ্ছ বোমার ব্যবহারকে অনেক দেশই বিপজ্জনক ও মানবাধিকার পরিপন্থী হিসেবে বিবেচনা করে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেছেন, ইউক্রেন সংঘাত পরবর্তী যেকোনো ধরনের বেসামরিক জনগণের ঝুঁকি ও ক্ষয়ক্ষতি প্রশমনের বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তবে রাশিয়া বিস্তৃত পরিসরে এই ধরনের মারণাস্ত্র ব্যবহার করায় যুক্তরাষ্ট্র ক্লাস্টার বোমা সরবরাহ না করলেও ইউক্রেনের তা দরকার পড়বে।

তিনি আরো দাবি করেছেন, ইউক্রেন এই ধরনের অস্ত্র কোনো বিদেশি ভূমিতে ব্যবহার করবে না। তারা নিজেদের ভূমি রক্ষার জন্যই এটা করবে।

তবে অনেক মার্কিন কর্মকর্তা ইউক্রেনকে ক্লাস্টার বোমা সরবরাহের ব্যাপারে সন্দিহান। তাদের ধারণা, কোনো রকম বাছবিচার ছাড়াই বিস্তৃত এলাকা জুড়ে এই ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হতে পারে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় উন্নত করা ক্লাস্টার বোমাগুলোই বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের মজুতে আছে।

আর ক্লাস্টার বোমা ঠিক মতো কাজ না করার জন্যও বিতর্কিত। দেখা যায় এগুলো নানা কারণে নিক্ষেপের পর অবিস্ফোরিত অবস্থায় বছরের পর বছর থেকে যায়। যা দীর্ঘদিনের জন্য বড় রকমের ঝুঁকি তৈরি করে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

ইউক্রেনকে ক্লাস্টার বোমা দেওয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সুর বদল

আপডেট টাইম : 08:09:30 am, Saturday, 8 July 2023

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আগেই শোনা গিয়েছিল রাশিয়ার সেনাদের প্রতিহত করতে ইউক্রেনকে নতুন নিরাপত্তা সহায়তার আওতায় ক্লাস্টার বোমা দিতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই ঘোষণার পরই জাতিসংঘ ও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর পক্ষ থেকে আসে সম্ভাব্য বিপর্যয়ের হুঁশিয়ারি। মার্কিন এই সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনাও করেন অনেকে।

এর প্রেক্ষিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, বেসামরিক নাগরিকদের ঝুঁকি বিবেচনায় আপাতত তারা এই সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে।

গত কয়েক মাস ধরেই পশ্চিমাদের কাছে আরো অস্ত্র চেয়ে আসছে ইউক্রেন।
বিশ্বের একশ’টির বেশি দেশ ক্লাস্টার বোমার ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। এই গুচ্ছ বোমার ব্যবহারকে অনেক দেশই বিপজ্জনক ও মানবাধিকার পরিপন্থী হিসেবে বিবেচনা করে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেছেন, ইউক্রেন সংঘাত পরবর্তী যেকোনো ধরনের বেসামরিক জনগণের ঝুঁকি ও ক্ষয়ক্ষতি প্রশমনের বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তবে রাশিয়া বিস্তৃত পরিসরে এই ধরনের মারণাস্ত্র ব্যবহার করায় যুক্তরাষ্ট্র ক্লাস্টার বোমা সরবরাহ না করলেও ইউক্রেনের তা দরকার পড়বে।

তিনি আরো দাবি করেছেন, ইউক্রেন এই ধরনের অস্ত্র কোনো বিদেশি ভূমিতে ব্যবহার করবে না। তারা নিজেদের ভূমি রক্ষার জন্যই এটা করবে।

তবে অনেক মার্কিন কর্মকর্তা ইউক্রেনকে ক্লাস্টার বোমা সরবরাহের ব্যাপারে সন্দিহান। তাদের ধারণা, কোনো রকম বাছবিচার ছাড়াই বিস্তৃত এলাকা জুড়ে এই ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হতে পারে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় উন্নত করা ক্লাস্টার বোমাগুলোই বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের মজুতে আছে।

আর ক্লাস্টার বোমা ঠিক মতো কাজ না করার জন্যও বিতর্কিত। দেখা যায় এগুলো নানা কারণে নিক্ষেপের পর অবিস্ফোরিত অবস্থায় বছরের পর বছর থেকে যায়। যা দীর্ঘদিনের জন্য বড় রকমের ঝুঁকি তৈরি করে।