Dhaka , Friday, 24 May 2024

মালয়েশিয়ায় শতাধিক বাংলাদেশির মানবেতর জীবন

  • Robiul Islam
  • আপডেট টাইম : 08:07:41 am, Saturday, 8 July 2023
  • 39 বার

মালয়েশিয়া ডেস্ক: কলিং ভিসায় মালয়েশিয়ায় গিয়ে প্রতারিত হয়েছেন শতশত বাংলাদেশি। পরিবারকে ভালো রাখা এবং নিজে ভালো থাকার আশায় চড়া সুদে ৫ লাখ টাকা খরচ করে দেশটিতে যান এসব বাংলাদেশি। চোখে রঙিন স্বপ্ন নিয়ে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমালেও মাসের পর মাস কর্মহীন মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

জানা যায়, বাংলাদেশের কয়েকটি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে মালয়েশিয়ার কোর ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন এসডিএন বিএইচডি কোম্পানিতে ৩ থেকে ৪ মাসের আগে গিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এই বাংলাদেশিরা। শ্রমিক প্রেরণে প্রতারণার আশ্রয় নেওয়া বিভিন্ন কোম্পানির বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ থাকলেও কোনো ব্যবস্থা নেয় না কর্তৃপক্ষ।

যারা বাংলাদেশের অর্থনীতি সচল রেখেছেন, তাদের মধ্যে রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের ভূমিকা অগ্রগণ্য। আমাদের অর্থনীতির তিন প্রধান চালিকা শক্তির অন্যতম প্রবাসী শ্রমিক। সেই প্রবাসীদের জীবনে একটি অভিশাপের নাম হলো প্রতারণা। শ্রমিকরা পরিবারের স্বচ্ছলতা আনতে গরু ছাগল বিক্রি করে, জমি বিক্রি করে, চড়া সুদে টাকা এজেন্সিকে দিয়ে বিদেশের মাটিতে ভালো কাজের আশায় পা রাখেন প্রবাস জীবনে, তখন প্রতারিত হতে হয় তাদেরকে। এমনই প্রতারণার শিকার হয়েছেন মালয়েশিয়ায় শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি।

ভুক্তভোগী শ্রমিকরা বলেন, বাংলাদেশের পরিবার থেকে হুন্ডির মাধ্যমে টাকা এনে নিজেদের খাবার কিনে জীবন চালাতে হচ্ছে। অথচ এই প্রবাসী শ্রমিকরা জমি বিক্রি করে, লোন করে, সুদে টাকা নিয়ে ৪ লাখ ৫০ হাজার থেকে ৫ লাখ এজেন্সিকে দিয়ে করে মালয়েশিয়াতে এসেছেন। যেখানে এই প্রবাসী শ্রমিকদের এই ৪ থেকে ৫ মাস বাংলাদেশে রেমিট্যান্স পাঠানোর কথা সেখানে উল্টো দেশ থেকে টাকা নিয়ে এসে জীবন বাঁচাতে হচ্ছে।

শ্রমিকরা বলেন, এজেন্সির মালিককে ফোন করলে আগে কল ধরে বলতো কাজ হবে অপেক্ষা করো কিন্তু বর্তমানে আর ফোন ধরে না। মালয়েশিয়ার কোম্পানির লোক বলে আমাদের কাজ নাই যদি তোমরা অন্য কোথায় কাজ করার জন্য পাসপোর্ট নিজের কাছে নিতে চাও তাহলে প্রতি জন ৪ হাজার রিঙ্গিত (প্রায় ১ লাখ টাকা) করে দিতে হবে।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের লেবার উইং এর প্রথম সচিব এ এস এম জাহিদুর রহমান জানান, কাজ না পাওয়া এসব শ্রমিকদের বিষয়ে মালয়েশিয়ার শ্রম মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Robiul Islam

মালয়েশিয়ায় শতাধিক বাংলাদেশির মানবেতর জীবন

আপডেট টাইম : 08:07:41 am, Saturday, 8 July 2023

মালয়েশিয়া ডেস্ক: কলিং ভিসায় মালয়েশিয়ায় গিয়ে প্রতারিত হয়েছেন শতশত বাংলাদেশি। পরিবারকে ভালো রাখা এবং নিজে ভালো থাকার আশায় চড়া সুদে ৫ লাখ টাকা খরচ করে দেশটিতে যান এসব বাংলাদেশি। চোখে রঙিন স্বপ্ন নিয়ে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমালেও মাসের পর মাস কর্মহীন মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

জানা যায়, বাংলাদেশের কয়েকটি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে মালয়েশিয়ার কোর ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন এসডিএন বিএইচডি কোম্পানিতে ৩ থেকে ৪ মাসের আগে গিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এই বাংলাদেশিরা। শ্রমিক প্রেরণে প্রতারণার আশ্রয় নেওয়া বিভিন্ন কোম্পানির বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ থাকলেও কোনো ব্যবস্থা নেয় না কর্তৃপক্ষ।

যারা বাংলাদেশের অর্থনীতি সচল রেখেছেন, তাদের মধ্যে রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের ভূমিকা অগ্রগণ্য। আমাদের অর্থনীতির তিন প্রধান চালিকা শক্তির অন্যতম প্রবাসী শ্রমিক। সেই প্রবাসীদের জীবনে একটি অভিশাপের নাম হলো প্রতারণা। শ্রমিকরা পরিবারের স্বচ্ছলতা আনতে গরু ছাগল বিক্রি করে, জমি বিক্রি করে, চড়া সুদে টাকা এজেন্সিকে দিয়ে বিদেশের মাটিতে ভালো কাজের আশায় পা রাখেন প্রবাস জীবনে, তখন প্রতারিত হতে হয় তাদেরকে। এমনই প্রতারণার শিকার হয়েছেন মালয়েশিয়ায় শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি।

ভুক্তভোগী শ্রমিকরা বলেন, বাংলাদেশের পরিবার থেকে হুন্ডির মাধ্যমে টাকা এনে নিজেদের খাবার কিনে জীবন চালাতে হচ্ছে। অথচ এই প্রবাসী শ্রমিকরা জমি বিক্রি করে, লোন করে, সুদে টাকা নিয়ে ৪ লাখ ৫০ হাজার থেকে ৫ লাখ এজেন্সিকে দিয়ে করে মালয়েশিয়াতে এসেছেন। যেখানে এই প্রবাসী শ্রমিকদের এই ৪ থেকে ৫ মাস বাংলাদেশে রেমিট্যান্স পাঠানোর কথা সেখানে উল্টো দেশ থেকে টাকা নিয়ে এসে জীবন বাঁচাতে হচ্ছে।

শ্রমিকরা বলেন, এজেন্সির মালিককে ফোন করলে আগে কল ধরে বলতো কাজ হবে অপেক্ষা করো কিন্তু বর্তমানে আর ফোন ধরে না। মালয়েশিয়ার কোম্পানির লোক বলে আমাদের কাজ নাই যদি তোমরা অন্য কোথায় কাজ করার জন্য পাসপোর্ট নিজের কাছে নিতে চাও তাহলে প্রতি জন ৪ হাজার রিঙ্গিত (প্রায় ১ লাখ টাকা) করে দিতে হবে।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের লেবার উইং এর প্রথম সচিব এ এস এম জাহিদুর রহমান জানান, কাজ না পাওয়া এসব শ্রমিকদের বিষয়ে মালয়েশিয়ার শ্রম মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে।